মাশরাফি সঠিক সিদ্ধান্তটাই নিয়েছেঃ সালাউদ্দিন

দুর্জয় দাশ গুপ্ত »

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

করোনাভাইরাসের কারণে অবরুদ্ধ একটা সময় যাচ্ছে। ক্রিকেটার থেকে শুরু করে কোচ, সবাই এখন গৃহবন্দী। এত লম্বা সময় ধরে মাঠের বাইরে থাকার নজির ক্রিকেট সংশ্লিষ্টদের নেই।

নিউজ ক্রিকেট ২৪ ডট কম এবার কথা বলেছে এমন একজন মানুষের সাথে যিনি তামিম-সাকিব-মুশফিকদের মতো বড় বড় তারকা ক্রিকেটারদের তৈরি করেছেন নিজ হাতে। সাকিব আল হাসান গতকালও একটি সাক্ষাৎকারে এই কোচের প্রশংসা করেছেন। এখনো যেকোনো ক্রিকেটার কোন সমস্যায় পড়লে সবার আগে ছুটে যান তার কাছে। বলছিলাম কোচ মোঃ সালাউদ্দিনের কথা।

নিজের কোচিং ক্যারিয়ারের গল্প থেকে শুরু করে তামিম-সাকিব-মাশরাফিদের বিভিন্ন বিষয় নিয়েও কথা বলেছেন তিনি।

পাঠকদের জন্য পুরো সাক্ষাৎকার তুলে ধরা হলো।

নিউজক্রিকেটঃ কোয়ারেন্টাইনে কেমন যাচ্ছে?

সালাউদ্দিনঃ একদম পরিবারের সদস্য হয়ে গিয়েছি যা এতদিন ছিলাম না। বাচ্চাদের সময় দিচ্ছি। বিকেল বেলা ছেলেকে অনুশীলনে সাহায্য করি।

নিউজক্রিকেটঃ কোচিং ক্যারিয়ারের শুরুটা কিভাবে হয়েছিলো?

সালাউদ্দিনঃ আমি জাহাঙ্গীরনগরে ছিলাম সেখানে আমি ইনডোরে অনুশীলন করতাম। সেখান থেকে ফাহিম স্যারের কাছে যাই। ফাহিম স্যার (নাজমুল আবেদিন ফাহিম) তখন বিকেএসপিতে একা ছিলেন। তিনি আমাকে বললেন তুমি অনুশীলন করার পাশাপাশি ছেলেদেরকে একটু দেখিয়ে দিও। আসলে তখন থেকেই শুরু। আমার এ ব্যাপারটা ভালো লাগতো। এ বছরই আমি ঢাকা লিগে খেলতে গিয়েছিলাম। কিন্তু তখন দেখলাম আমি খুব একটা সুবিধা করতে পারছি না। তারপর স্যারকে বললাম আমি আর খেলবো না, আমি কোচিংয়ে আসতে চাই। তারপর পার্টটাইম জব হিসেবে বিকেএসপিতে ঢুকলাম। এভাবেই শুরু।

নিউজক্রিকেটঃ আপনারা তো মাঠের মানুষ। এই সময়টা আপনাদের জন্য কতটা কঠিন?

সালাউদ্দিনঃ সত্যি কথা বলতে এটা খুবই কঠিন একজন ক্রিকেটার বলেন বা কোচ বলেন তার জন্য। ইতিমধ্যে অনেকদিন হয়ে গেছে সবাই মাঠের বাইরে। মাসখানেক হলে মেনে নেয়া যেতো। কিন্তু তিন মাসেরও বেশি সময় ধরে সবাই ঘরে বসে আছে এটা খুবই কঠিন ব্যাপার। এখন পর্যন্ত মাঠে নামার কোন সুযোগই আসে নি। আর এখানে কিছু করার নেই। সবাইকে মন শক্ত করে বসে থাকতে হবে। আমি মনে করি এটা আরো কিছুদিন চলতে থাকলে অনেক ক্রিকেটার মানসিকভাবে আঘাতপ্রাপ্ত হবে।

নিউজক্রিকেটঃ প্রিমিয়ার লিগ না হলে স্থানীয় ক্রিকেটাররা কতটা অসুবিধায় পড়বে বলে মনে করেন?

সালাউদ্দিনঃ আসলে এটা এমন একটা পরিস্থিতি এখানে কিছু করার নেই। কিছু করার থাকলে তখন হয়তো বলা যেতো। যখন সবকিছু পুরোপুরি স্বাভাবিক হবে তখন হয়তো প্লেয়াররা মাঠে নামবে। এটা ঠিক তাদের অনেক ক্ষতি হবে। আর্থিকভাবেও। এটাও সত্যি যে এটার উপরে অনেক পরিবার নির্ভর করে থাকে। অনেক ক্রিকেটার সেটা মুখে বলতেও পারছে না। তবুও আমি বলবো আগে বাঁচতে হবে তারপর অন্য কিছু নিয়ে চিন্তা। যদি সবকিছু স্বাভাবিক হবে তখন খেলা শুরু করা উচিত।

নিউজক্রিকেটঃ তামিম ইকবাল এখন ওয়ানডে দলের অধিনায়ক। আপনি তো তামিমকে খুব কাছ থেকে দেখেছেন। অধিনায়ক হিসেবে তামিম কেমন হবেন?

সালাউদ্দিনঃ এখন তামিম অনেক উন্নতি করেছে। বিপিএলেও আমি তামিমকে খুব কাছ থেকে দেখেছি, ঢাকা লিগেও তামিম দেখেছি একটা ম্যাচে। আমার মনে হয় এখন তামিম অধিনায়কত্বের জন্য প্রস্তুত। আর অনেকদিন ধরে জাতীয় দলে সে খেলে আসছে, এখন অনেক অভিজ্ঞ। তামিমের জন্যও একটা ভালো সুযোগ। শুধু খেলা না, খেলার বাইরেও কিছু জিনিস থাকে যেগুলো তামিম খুব ভালো করে সামলাতে পারে। এবং মাঠেও তামিম এখন অনেক পরিণত। আর অধিনায়কত্বে সফল হতে হলে হাতে ভালো অস্ত্র থাকতে হবে। ভালো ব্যাটসম্যান, ভালো বোলার থাকলে তবেই একজন অধিনায়ক নিজের সেরাটা দিতে পারে।

নিউজক্রিকেটঃ মাশরাফি কি সঠিক সময়েই অধিনায়কত্ব ছেড়েছেন? নাকি তাড়াহুড়ো করে ফেলেছেন? আপনার মতামত কি?

সালাউদ্দিনঃ মাশরাফি খুব ভালো একটা সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কারণ মাশরাফিকে এখন অনেক দিক সামাল দিতে হয়। আমি মনে করি মাশরাফি বিন মোর্ত্তজার জন্য ভালোই হয়েছে। তবে এমন না যে মাশরাফি অবসর নিয়েছি। মাশরাফি খেলবে। এখন যদি নির্বাচক সহ সবাই মনে করেন মাশরাফি সবদিক সামাল দিতে পারছে এবং ঠিকঠাক তাহলে অবশ্যই খেলবে। আমি আবারো বলছি মাশরাফির অধিনায়কত্ব ছাড়ার সিদ্ধান্ত খুবই ভালো ছিলো।

নিউজক্রিকেটঃ নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে দলে ফিরলে মানিয়ে নিতে কতটা সময় লাগবে সাকিব আল হাসানের?

সালাউদ্দিনঃ এটা স্বাভাবিক লম্বা সময় পর ক্রিকেটে ফিরলে একটু সমস্যা হয়। তবে আমি মনে করি যেহেতু সাকিব তাই খুব বেশি সময় লাগবে না। ব্যাট-বল নিয়ে মাঠে নেমে পড়লে সাকিব খুব সহজেই মানিয়ে নিবে।

নিউজক্রিকেটঃ টেস্ট ক্রিকেটে উন্নতির জন্য কি করা উচিত?

সালাউদ্দিনঃ আসলে উন্নতির জন্য কি করা উচিত এটা আমার চেয়ে বোর্ডে যারা আছেন তারাই ভালো বলতে পারবেন। কেননা আমি ক্রিকেটারদের কাছ থেকে দেখার সুযোগ পাই না, কাজেই কার কোন জায়গায় সমস্যা এটাও আমার জানার কথা না। তবে আমি মনে করি বোর্ডে যারা আছেন তারা অবশ্যই এ ব্যাপারটা নিয়ে ভাবছেন।

নিউজক্রিকেটঃ পঞ্চপাণ্ডবের অবসরের আগে জাতীয় দলের কোচিংয়ে আসবেন না। কেন?

সালাউদ্দিনঃ আসলে যে পাঁচজন ক্রিকেটারের কথা বললেন এদের সাথে আমি খুব বেশি ক্লোজ। তাদের পরিবারের অনেক সদস্যও হয়তো এতটা ক্লোজ না আমার সাথে তারা যেভাবে। ড্রেসিংরুমে কিছু ব্যাপার থাকে কোচ এবং খেলোয়াড়দের মধ্যে। আমি এজন্যই বলেছি।

নিউজক্রিকেটঃ করোনার কারণে ক্রিকেটে বেশ কিছু পরিবর্তন এসেছে। ক্রিকেটারদের মানিয়ে নিতে সমস্যা হবে কি?

সালাউদ্দিনঃ একটু সময় তো অবশ্যই লাগবে। কারণ এতদিন একটা নিয়মে খেলা হয়েছে আর এখন কিছুটা পরিবর্তন এসেছে। তবে বড় কথা হলো ক্রিকেট আবারো মাঠে ফিরছে। আমি মনে করি এটা স্বস্তির ব্যাপার। আর সবকিছু স্বাভাবিক হলে হয়তো এ পরিবর্তনগুলোও থাকবে না।।

নিউজক্রিকেটঃ নিউজ ক্রিকেট ২৪ ডট কমের পক্ষ থেকে আপনাকে ধন্যবাদ।

সালাউদ্দিনঃ আপনাকে ধন্যবাদ এবং নিউজ ক্রিকেটের সকল পাঠকদের শুভেচ্ছা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »