রোজা রেখেই বিশ্বকাপ মাতাবেন আমলা

https://scontent.fdac4-1.fna.fbcdn.net/v/t1.0-9/36386236_2027432020601594_1928619179817041920_n.jpg?_nc_cat=104&_nc_eui2=AeFY40879vpUlXD3TvLuwunYiYPt9keMWugjnmsYPL9A2_cQ-azY1GmWWQy36LFNFzNLAU2kdDYB9vV9Qwdjt7cfxuFbw0DGkcoiJ24B4pOm6Q&_nc_ht=scontent.fdac4-1.fna&oh=926e9b4229d9f6e3ffd66fe5510e3767&oe=5D672D33 »

ক্রিকেট বিশ্বে মুসলিম ধর্মের অনুশাসন মেনে চলা ক্রিকেটারদের মধ্যে অন্যতম প্রধান নাম হল হাশিম আমলা। ইতিপূর্বে বেশ কয়েকবার আলোচনায় এসেছিলেন ধর্মীয় কারণে জাতীয় দলের জার্সি থেকে অ্যালকোহল জাতীয় পণ্যের স্পন্সর এর নাম মুছে সেই জার্সি গায়ে দেয়া এবং এর জন্য নির্দিষ্ট পরিমাণে অর্থ জরিমানা দিয়ে।

এবারের বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হচ্ছে মুসলিম ধর্মের রোজার শেষ কিছুদিনে। অর্থাৎ শেষের দিকে কিছু রোজা পড়েছে বিশ্বকাপে। সারাদিন রোজা রেখে সাধারণভাবেই শরীর যখন খুব ক্লান্ত থাকে তখন রোজা রেখে মাঠের ক্রিকেটে খেলাটা কষ্টসাধ্য ব্যাপারই বটে। তবে ধর্মীয় অনুশাসনের প্রতি যথেষ্ট শ্রদ্ধাশীল আমলা এবারের বিশ্বকাপে খেলবেন রোজারত অবস্থাতেই।

আমলা জানান, ‘এটা আসলে অসাধারণভাবে আমাকে সহায়তা করে। বছরের সেরা মাশ অবশ্যই রোজার মাস। আমি সবসময় রোজার দিকেই তাকিয়ে থাকি। এটা মানসিক এবং আত্মিক ব্যায়াম হিসেবে কাজ করে।’

একাদশে জায়গা পেলে নিজেকে উজার করে দেয়ার কথা জানিএ আমলা বলেন, ‘সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে বিষয়টি আমার কাছে সেটি হল রান করা। একাদশে আছি কি নেই সেটা বেশি গুরুত্বপূর্ণ নয়। আমি মাঠে সবকিছু দেখাতে চাই। এমন কিছু করতে চাই যা দলের উপকারে আসে।’

দক্ষিণ আফ্রিকা এবারের বিশ্বকাপে ফেভারটের তকমা গায়ে মেখে না নামলেও যেকোনো কিছুই করার সামর্থ্য যে তাদের রয়েছে সেটা সবারই জানা। তাছাড়া চোকার্স উপাধি পাবার কারণে যে সকল নেতিবাচকতা দেখা যায় দলের মধ্যে এসব নিয়ে ভাবতে চান না আমলা।

‘আপনি চাইলেই সবকিছু বদলে ফেলতে পারবেন না। এটা তার নিয়মেই ঘটে যাবে। এটা নিয়ে যত সচেতনই থাকি না কেন এটা ঘটেই যাবে। আমাদের কোচিং স্টাফ এবং ক্রিকেটাররা সবা অনেক অভিজ্ঞ। তারা সবাই অনেক জ্ঞান সমৃদ্ধ।’

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »