মাশরাফিকে নিয়ে এখনি ভাবছেন না নান্নু!

সাজিদা জেসমিন »

২০১৯ বিশ্বকাপের পর গত জুলাই মাসে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে সর্বশেষ ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। আবার প্রায় ৭ মাস পর মার্চে জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে ওয়ানডে খেলবে। টাইগারদের ওয়ানডে ম্যাচ নিয়ে আলোচনা মানেই ক্যাপ্টেন মাশরাফির খেলা নিয়ে প্রশ্ন উঠবেই। এবারো উঠে আসলো একই প্রশ্ন। জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে মাশরাফির খেলা নিয়ে প্রশ্ন উঠতেই প্রধান নির্বাচক জানান এখনই এটি নিয়ে ভাবতে রাজি নন তারা। টেস্ট সিরিজ শেষে এ ব্যাপার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসবে।

শ্রীলঙ্কা সফরের ৩ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে বেহাল দশায় ছিলো তামিম ইকবালের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ দল। চোটের কবলে পড়ে শেষ মুহূর্তে সিরিজ থেকে ছিটকে পড়েন নিয়মিত অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। তারপর টেস্ট ও টি-২০ খেলা হলেও বাংলাদেশ আর কোন ওয়ানডে খেলেনি । অন্যদিকে মাশরাফির অবসর নিয়েও শোনা যাচ্ছে নানান গুঞ্জন।

মাশরাফি এখনো ঠিক করেন নি কবে অবসর নিবেন, আর জাতীয় দলের জন্য বিবেচিত হবেন কিনা তা নিয়েও নেই তাঁর মাথাব্যথা। যেকোনভাবে ক্রিকেটে সংশ্লিষ্ট থাকতে চান আরও কিছুদিন। আগামী বিশ্বকাপ ভাবনায় তরুণ কাউকে মাশরাফির স্থলাভিষিক্ত করার ভাবনা ইতিমধ্যেই নাড়া দিচ্ছে টিম ম্যানেজমেন্টকে। সব বিবেচনা করে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৩ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের আগে খুব বেশিই আলোচনায় এসেছে মাশরাফির অবসর এবং ওয়ানডে দল নির্বাচন।

পাকিস্তান সফরের পূর্বে প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো ডেকে পাঠিয়ে ছিলেন মাশরাফিকে। দুজনে মিলে আলোচনায় বসেন বিসিবিতে। সৌজন্য সাক্ষাতের জন্যই ওয়ানডে অধিনায়ককে ডাকা হয়েছে এমনটাই গণমাধ্যমে জানান কোচ। যদিওবা আসন্ন জিম্বাবুয়ে সিরিজ নিয়েই আলোচনা হয়েছে এমন গুঞ্জনও শোনা যাচ্ছিলো।

তবে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু বলছেন এখনই এ ব্যাপারে ভাবছেন না তারা। আগামীকাল থেকে শুরু হতে চলেছে রাওয়ালপিন্ডি টেস্ট। টেস্ট খেলার লক্ষ্যে বর্তমানে দল পাকিস্তানে অবস্থান করছে । দেশে ফিরেই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টের প্রস্তুতি শুরু করবে দল। মার্চের ১ তারিখে ওয়ানডে সিরিজ মাঠে গড়াবে । ফলে ওয়ানডে সিরিজ ও মাশরাফির অবসর নিয়ে চিন্তাটা আরও পরেই করতে চান নান্নু।

তিনি বলেন – ‘এ ব্যাপার নিয়ে আমরা এখনো চিন্তা করিনি কারণ এখন টেস্ট চলছে। আপাতত টেস্ট নিয়ে চিন্তা করছি, টেস্ট ক্রিকেট শেষ হলে এটার ব্যাপারে ভাববো।’

এদিকে লম্বা সময় ওয়ানডে বিরতিতে থাকা বাংলাদেশ হঠাৎ করেই জিম্বাবুয়ে সিরিজে কিভাবে মানিয়ে উঠবে এমন প্রশ্নে নান্নু বলেন টেস্ট ও চারদিনের লঙ্গার ভার্সনের ক্রিকেট খেলছে বলে খুব একটা সমস্যা হওয়ার কথা না । এ প্রসঙ্গে আজ মিরপুরে গণমাধ্যম কর্মীদের নান্নু বলেন- ‘অবশ্যই, অনেকদিন যাবৎ আমরা পঞ্চাশ ওভারের ম্যাচ খেলছিনা এবং ঘরোয়াতেও না। যেকোন টেস্ট খেলুড়ে দেশের জন্যই এটা চ্যালেঞ্জিং ব্যাপার।’

‘সে হিসেবে মনে করি এখানে খেলোয়াড়রা যেহেতু বিপিএলে শর্টার ভার্সনে খেলে গেছে। লঙ্গার ভার্সন খেলছে, আর লঙ্গার ভার্সনটা যদি ভালো খেলে তবে পঞ্চাশ ওভারের ম্যাচ খেলতে খুব একটা সমস্যা হবেনা। বিসিএল খেলছে প্লেয়াররা, রানে রয়েছে অনেক ক্রিকেটার। জাতীয় দল টেস্ট খেলছে। আমার মনে হয় যে এ জায়গাটা অনেক তাড়াতাড়িই মানিয়ে নিতে পারবে।’

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »