বিশ্বের ঘৃণিত একাদশে মুশফিকের নাম!

https://scontent.fdac4-1.fna.fbcdn.net/v/t1.0-9/36386236_2027432020601594_1928619179817041920_n.jpg?_nc_cat=104&_nc_eui2=AeFY40879vpUlXD3TvLuwunYiYPt9keMWugjnmsYPL9A2_cQ-azY1GmWWQy36LFNFzNLAU2kdDYB9vV9Qwdjt7cfxuFbw0DGkcoiJ24B4pOm6Q&_nc_ht=scontent.fdac4-1.fna&oh=926e9b4229d9f6e3ffd66fe5510e3767&oe=5D672D33 »

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ক্রিকেট বিশ্বে ব্যাট কিংবা বল হাতে মাঠ মাতিয়ে সম্মান কুড়িয়ে নেয় ক্রিকেটাররা। ফলে দর্শকদের কাছে ভালোবাসা যেমনি পেয়ে থাকেন তারা তেমনি মুদ্রার উল্টো পিঠও দেখে থাকেন নানা কারণে। বিভিন্ন  বাজে কাজের জন্য সমালোচিত হয়েও থাকেন ক্রিকেটাররা।

এবার সেই সমালোচিত ক্রিকেটারদের নিয়ে ভারতের ক্রিকেট বিষয়ক সংবাদ মাধ্যম ক্রিকট্রেকার করেছে ঘৃণিত একাদশ। যেখানে বাংলাদেশ থেকে রয়েছে উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিমের নাম। আছেন একাধিক ভারতীয় ক্রিকেটারও।

এক নজরে দেখে নেয়া যাক ক্রিকট্রেকারের করা বিশ্বের ঘৃণিত একাদশ

১। সালমান বাট: পাকিস্তানের এই ওপেনার ব্যাটসম্যান ২০১০ সালে পুরো ক্রিকেট বিশ্বে ঘৃণার পাত্র হয়েই ছিলেন স্পট ফিক্সিংয়ের মত কলঙ্কিত কাজের জন্য।

২। জেসি রাইডার: নিউজিল্যান্ডের এই ক্রিকেটার মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালিয়ে দুর্ঘটনা তো ঘটিয়েছেনই সেটাকে কেন্দ্র করে আবার মারামারি বাধিয়ে নিজের ক্যারিয়ারের অস্তিত্ব বিলীন করে দিয়েছেন তিনি।

৩। রিকি পন্টিং: ভারতের বিপক্ষে সবসময়ে প্রতিভার সাক্ষর রাখা সাবেক এই অজি অধিয়ানক ২০১৯ সালে সিডনি টেস্টে আম্পায়ার সাথে অসদাচরণ করার জন্য ক্রিকেট বিশ্বে নিন্দার পাত্র হয়েই ছিলেন লম্বা সময় ধরে।

৪। গ্রেট চ্যাপেল: সাবেক এই অজি অধিনায়ক ১৯৮১ সালে ফাইনাল ম্যাচে তার ছোটভাই ট্রেভর চ্যাপেলকে দিয়ে আন্ডারয়ার্ম বল করিয়ে সমালোচনার কেন্দ্রবিন্দু ছিলেন।

৫। মোহাম্মদ আজাহারউদ্দিন: ভারতীয় এই ক্রিকেটার অভিনেত্রী সঙ্গীতা বিজলিকে বিয়ে করে একাধিক সম্পর্কে জড়িয়ে সমালোচনার পাত্র হয়েছিলেন। আর ২০০০ সালে স্পট ফিক্সিং হল তার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে কলঙ্কিত অধ্যায়।

৬। মাইকেল ক্লার্ক: ২০১৫ বিশ্বকাপ জয়ী এই অধিনায়ক ২০০৭-০৮ সালে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচে সাধারণ বিষয় নিয়ে শচীন টেন্ডুলকার এবং শেবাগের সাথে বাকবিতণ্ডায় জড়ালে ভারতীয় দর্শকদের কাছে ঘৃণার পাত্র হন তিনি।

৭। মুশফিকুর রহিম: ২০১৬ টি-২০ বিশ্বকাপে ভারত দল উইন্ডিজের কাছে হারলে মুশফিকুর রহিম তার সত্যায়িত ফেসবুক পেইজে একটি ছবি পোস্ট করে আনন্দ উদযাপন করেছিলেন। যা গায়ে সয়নি ভারতীয় সমর্থকদের।

৮। শ্রীশান্ত: ভারতীয় এই পেসারের ক্যারিয়ারে ইতি টেনে দিয়েছে এক ফিক্সিং কাণ্ড। ২০১৩ সালে এমন কাণ্ডের জন্য আজীবন নিষিদ্ধ হয়েছেন তিনি।

৯। রবি চন্দ্রন অশ্বিন: আইপিএলের ১২তম আসরে জস বাটলারকে মানকাডিং আউটের ফাঁদে ফেলে আউট করার পর পুরো ক্রিকেট বিশ্বে বয়ে যায় সমালোচনার ঝড়। সেই ঝড় আর সামাল দিতে পারেননি এই স্পিনার।

১০। মোহাম্মদ আসিফ: পাকিস্তানি এই পেসার ২০১০ সালে স্পট ফিক্সিংয়ে জড়িত ছিলেন। ফলে এমন ঘৃণ্য কাজের জন্যই তাকে রাখা হয়েছে এই তালিকায়।

১১। শেন ওয়ার্ন: অস্ট্রেলিয়ার স্পিন যাদুকর শেন ওয়ার্ন সমালোচনার ত্রে বিদ্ধ হয়েছেন বহু বার। ২০০৩ সালে মাদক গ্রহণ করে নিষিদ্ধ হওয়া, যৌন হয়রানি করা, বুকির সঙ্গে তার সম্পর্ক সহ ধুমপানের ছবি তোলায় কয়েকজন যুবককে মারধরের ঘটনাও ঘটান তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »