বিশ্বকাপে দল নির্বাচনের প্রক্রিয়াই গলদ ছিল!

https://scontent.fdac4-1.fna.fbcdn.net/v/t1.0-9/36386236_2027432020601594_1928619179817041920_n.jpg?_nc_cat=104&_nc_eui2=AeFY40879vpUlXD3TvLuwunYiYPt9keMWugjnmsYPL9A2_cQ-azY1GmWWQy36LFNFzNLAU2kdDYB9vV9Qwdjt7cfxuFbw0DGkcoiJ24B4pOm6Q&_nc_ht=scontent.fdac4-1.fna&oh=926e9b4229d9f6e3ffd66fe5510e3767&oe=5D672D33 »

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের সবচেয়ে বড় চমক ছিলেন পেসার আবু জায়েদ রাহি। বিশ্বকাপের ১৫ সদস্যের দলে থাকলেও মূল একাদশে জায়গা পান্নি রাহি। আয়ারল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ত্রিদেশীয় সিরিজের এক ম্যাচে পরীক্ষা চালানো হয়েছে তাকে দিয়ে। সেখানে অবশ্য বেশ সফলতার পরিচয় দিয়েছিলেন এই পেসার। ৫৮ রানের বিনিময়ে ৫ উইকেট নিয়ে ম্যাচের সেরা খেলোয়াড়ও নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি।

বিশ্বকাপের কন্ডিশন বিবেচনায় রাহিকে দলে নিলেও তাকে খেলাও হয়নি একটি ম্যাচেও। এদিকে বিশ্বকাপ শেষে বাংলাদেশ দলের শ্রীলঙ্কা সফরের স্কোয়াডেই রাখা হয়নি রাহিকে! রাহিকে লঙ্কা সফরে কন্ডিশনের যুক্তি দেখিয়ে দল থেকে বাদ দেয়ার কথা জানিয়েছেন নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু। তবে নান্নুর উল্টো সুর ভেসে আসলো সাবেক অধিনায়ক আমিনুল ইসলাম বুলবুলের কণ্ঠে। তিনি তাই প্রশ্ন তোললেন পুরো নির্বাচন প্রক্রিয়া নিয়েই!

দেশের সংবাদমাধ্যম ডেইলি স্টারকে বুলবুল বলেন, ‘ত্রিদেশীয় সিরিজে সে ৫ উইকেট নিয়েছে। সে তার যোগ্যতার প্রমাণ দিয়েছে। কিন্তু বিশ্বকাপের একটা ম্যাচেও তাকে দেখা যায়নি। এর কারন হতে পারে নির্বাচন প্রক্রিয়ায় ভুল ছিল যা নির্বাচকদের স্বীকার করে নেয়া উচিত। আরেকটা ব্যাপার হল তার সঙ্গে অবিচার করা হয়েছে।’

‘আসলে নির্বাচক কে? আমরা বলি দুইজন নির্বাচক। কিন্তু শুনি দলের ম্যানেজারও নির্বাচক, কোচ নির্বাচক, আবার কখনও শুনি বোর্ড সভাপতিও নির্বাচক। যে প্রক্রিয়ায় দল নির্বাচন করা হয় সেটা যে ভুল তা আবার প্রমাণ হল। কারন রাহির সাথে যেটা করা হয়েছে সেটা আমরা না করলেও পারতাম।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »