প্রেস কনফারেন্সে ডোমিঙ্গোর কন্ঠে হতাশা!

সাজিদা জেসমিন »

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলাদেশের প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো গত শনিবার গণমাধ্যমে বলেন – বাংলাদেশের প্রথম দুই টি-২০ তে ১৫ এবং ২৫ রান কম হয়েছিলো। সাথে সাথে এটাও স্বীকার করেন যে, স্বাগতিকদের সাথে আমাদের দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতায় অনেক পার্থক্য রয়েছে।

বিগত ২ ম্যাচে খুব সহজভাবেই পাকিস্তান সফরকারী দলকে হারিয়েছে। এবং ৩ ম্যাচ টি-২০ সিরিজে ১ ম্যাচ হাতে রেখেই তাদের সিরিজ নিশ্চিত করেছে। প্রথম ম্যাচে শুরুর দিকে সফরকারী দল যথেষ্ট চাপে ফেলে দিলেও ২য় ইনিংসে ফলাফল ঘুরে দাঁড়ায় বিপরীতে। পাকিস্তান ৯ উইকেটে অতিথি দলকে হারিয়ে দেখিয়ে দেয় তারা কেন ছোট ফরম্যাটে সেরাদের পর্যায়ে আছে।

২য় ম্যাচ হারার পর প্রেস কনফারেন্সে ডোমিঙ্গো বলেন, ‘আজকের দিনটা হতাশার। আমি ভেবেছিলাম আজকে আমরা প্রথম ম্যাচের চাইতেও যথেষ্ট ভালো চ্যালেঞ্জ দিয়েছি তাদেরকে। এ-ই উইকেটে এভারেজে ১৫৫+ রান করা খুব একটা সহজ নয়। প্রথম ম্যাচে আমাদের ১৫ রান কম ছিলো, এবং আজকের ম্যাচে ২৫ রান। ‘

‘কিন্তু আবারো বলতে হয়, ঠিক এ-ই কারণে তারা র‍্যাঙ্কে ১ নাম্বারে এবং আমরা ৯ নাম্বারে। এ-ই মুহূর্তে দুই দলের মধ্যে দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতায় যথেষ্ট পার্থক্য রয়েছে। তাদের সমকক্ষ হওয়ার জন্য, আমাদের আরো বহুদূর যেতে হবে।’ – ডোমিঙ্গো যোগ করেন।

বাংলাদেশ এ-ই সিরিজে সাকিবকে মিস করছে। মুশফিক ব্যক্তিগত কারণে নাম সরিয়ে নিয়েছে৷ এছাড়াও তরুণ প্রতিভা সাইফুদ্দিন ও ভুগছে ইনজুরিতে৷ এ ব্যাপারে রাসেল বলেন, ‘আমরা এ-ই সিরিজে আমাদের প্রথম তিন পছন্দনীয় ক্রিকেটারকে পাচ্ছিনা৷ ব্যাটিংয়ে আট নাম্বার পজিশন এবং নতুন বল হাতে সাইফুদ্দিন নেই। সাকিব দলে নেই। আপনারা মুশফিকের কথাও ভাবতে পারেন। তবে আমি মনে করি এটা তরুণদের জন্য সুযোগ। আমাদের বাকিদেরো পরীক্ষা করে দেখা দরকার। কেননা সিনিয়ররা আজীবন থাকবেনা।’

স্কোয়াডকে অনভিজ্ঞ বিবেচনা করে রাসেল বলেন, ‘আজ আমাদের ওপেনিং এ নাঈম খেলেছে, যে তার ৫ম টি-২০ খেলছে। আফিফ ৯ম বা ১০ম পজিশনে খেলে। মেহেদী ৩ নাম্বারে ব্যাট করেছে সেও ২য় ম্যাচ খেলছে। বলা চলে একটি অপরিণত স্কোয়াড অনেকটা, তবে আমি মনে করি সামনে তারা অনেক ভালো করবে। আর বোলিংয়ে তারা যথেষ্ট শক্ত প্রতিপক্ষকে ফেইস করেছে, আশা রাখি এখান থেকে তারা ভালো কিছু শিক্ষা নিবে এবং অদূর ভবিষ্যতে কাজে লাগাবে।’

তামিমের ব্যাপারে আশাবাদী রাসেল। তামিমকে নিয়ে বলেন, ‘তামিমের সাথে এটি আমার প্রথম সফর। সে ২ম্যাচেই ভালো করার চেষ্টা করেছে। যেটা ভালো দিক, যা ওর সেরাটা বের করে নিয়ে আসতে সহায়তা করবে। মূলত উইকেট হারানোটা আমাদের জন্য সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। ২য় ওভারে, ৪র্থ ওভারে, ৮ম ওভারে উইকেট হারানোর ফলে সে যাদের সাপোর্ট পাওয়ার কথা ঠিকঠাক পায়নি৷ আমি মনে করি সে খেলাকে পরবর্তী পর্যায় পর্যন্ত নিয়ে যাবে পাশাপাশি ডিপার্টমেন্টকেও।’

লিটন, সৌম্যের ব্যাপারে বলেন, ‘লিটন মূলত ওপেনিংয়ে নামেন। কিন্তু এবার সে ৪ নাম্বার পজিশনে নেমেছে। যা তার পজিশনের বিপরীত, কিন্তু আমরা অনেক ওপেনার পেয়েছি যে কারণে সেটি সম্ভব হচ্ছে না। আর সৌম্য দারুণ একজন ক্রিকেটার। আমি মনে করি তাকে যদি শেষের দিকের জন্য রাখা যায়। কেননা শেষের দিকে আমাদের কিছু হিটিং ব্যাটসম্যান প্রয়োজন, যে জিনিসটা বাংলাদেশ টিমকে সবচেয়ে বেশি ভোগায়।’

৩জন ক্রিকেটার এখনো সুযোগ পাননি। ডোমিঙ্গো চান সবাই সুযোগ পাক। সবাইকে বাজিয়ে দেখে এরপর আসন্ন টি-২০ ওয়ার্ল্ডকাপের কথা ভাবা যাবে। রুবেল,শান্ত,হাসান শেষ ম্যাচে একাদশে ফিরতে পারে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »