পারফরম্যান্স দিয়েই আবার দলে ফিরতে চাইঃ এনামুল

দুর্জয় দাশ গুপ্ত »

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

২০০৩ সালে মোহাম্মদ রফিক ইনজুরিতে পড়লে তার জায়গায় সুযোগ পান মাত্র ১৮ বছর বয়সী এনামুল হক জুনিয়র। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বিসিবি একাদশের হয়ে ৪ উইকেট নিয়ে আলোচনায় আসেন এনামুল৷

বাংলাদেশের সবচেয়ে সফল স্পিনার যে কয়জন আছেন তাদের একজন এনামুল হক জুনিয়র। তার হাত ধরেই বাংলাদেশ প্রথম টেস্ট জয়ের স্বাদ পায়।

জিম্বাবুয়ের সাথে প্রথমবার খেলতে নেমেই এনামুল যা করলেন তা রীতিমত অবিশ্বাস্য। মাত্র ১৮ বছর বয়সী একটা ছেলে একাই ধসিয়ে দিলো জিম্বাবুয়েকে। দুই ইনিংস মিলিয়ে (৭ ও ৫) মোট ১২ উইকেট নিয়ে প্রথম টেস্ট জয়ের নায়ক তিনি। হয়েছেন ম্যান অব দ্য ম্যাচ।

জাতীয় দলে ‘সাবেক’ হওয়া অভিজ্ঞ স্পিনার এনামুল হক জুনিয়র নিউজ ক্রিকেট ২৪কে দেওয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে জাতীয় লিগ, বিপিএল সহ বিভিন্ন বিষয়ে কথা বলেছেন। তার সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন দুর্জয় দাশ গুপ্ত

নিউজ ক্রিকেট ২৪ঃ টেস্ট ক্রিকেট নিয়ে কথা বললেই আপনার নাম চলে আসে। প্রথম টেস্ট জয়ের নায়ক আপনি। ব্যাপারটা কতটুকু উপভোগ করেন?

এনামুল জুনিয়রঃ এ ব্যাপারটা অবশ্যই উপভোগ্য। বাংলাদেশ প্রথম টেস্ট জিতেছে সেটা ১০০ বছর পরে হলেও স্মরণীয় হয়ে থাকবে আর প্রথম টেস্টের ম্যান অব দ্য ম্যাচ ছিলাম আমি৷

নিউজ ক্রিকেট ২৪ঃ টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের অভিষেক হয়েছে সেই ২০০০ সালে। প্রায় ২০ বছর হয়ে গেলেও এই ফরম্যাটে এখনো চোখে পড়ার মত কোন উন্নতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে না৷ এর কারণ কি হতে পারে? আপনি কি মনে করেন?

এনামুল জুনিয়রঃ আমি মনে করি ২০ বছর পরেও উন্নতি না হওয়ার মূল কারণ আমাদের গঠনমূলক উন্নতি এখনো হয়নি। গত দুই বছর ধরে বিসিবি যেভাবে জাতীয় লিগ সহ ঘরোয়া টুর্নামেন্ট গুরুত্ব দিয়ে দেখছে, উইকেটে ঘাস রাখছে, সবাই এখন খেলতে চাচ্ছে এভাবে আগে থেকে কাজ করা উচিত ছিলো। অবশ্যই এর ফল আসবে তবে ফল পেতে একটু সময় লাগবে। এবছর জাতীয় লিগ অনেক ভালোভাবে সম্পন্ন হয়েছে। বোর্ড যেভাবে সুযোগ-সুবিধা বাড়াচ্ছে এতে করে টেস্ট ক্রিকেটে ভালো ফল পাওয়া সম্ভব। তবে আরেকটা ব্যাপার হলো আমাদের ঘরোয়া ক্রিকেট এবং অনূর্ধ্ব ১৯, অনূর্ধ্ব ২৩ এ ধরনের বয়স ভিত্তিক দলের ম্যাচ আরো বাড়াতে হবে, এদের আরো সুযোগ দিতে হবে। এবারের আসরের জন্য আমি ধন্যবাদ দিতে চাই টুর্নামেন্ট কমিটিকে। তারা যেভাবে টুর্নামেন্ট সাজিয়েছেন অবশ্যই প্রশংসার দাবিদার। ফাস্ট ক্লাস ক্রিকেটে ম্যাচের সংখ্যা আরো বাড়াতে হবে তবেই ভালো ফল পাওয়া সম্ভব।

নিউজ ক্রিকেট ২৪ঃ জাতীয় লিগে টায়ার-২ চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন এবার৷ বিপিএলও দরজায় কড়া নাড়ছে। জাতীয় লিগ এবং বিপিএল নিয়ে আপনার কোন বিশেষ পরিকল্পনা ছিলো?

এনামুল জুনিয়রঃ সত্যি কথা বলতে টায়ার-২ চ্যাম্পিয়ন হওয়া সিলেটের ক্রিকেটারদের জন্য একটি বড় পাওয়া। এটা আমরা সকল টিমমেটরা উপভোগ করেছি। এবার পালা বিপিএলের। অবশ্যই চেষ্টা থাকবে বিপিএলে ভালো কিছু করার। বিপিএলে ভালো করাটা আমার জন্য জরুরী। বিপিএলকে ঘিরেই ভালো পরিকল্পনা আছে। আশা করছি বিপিএলেও ভালো কিছু হবে।

নিউজ ক্রিকেট ২৪ঃ অনেকদিন তো হলো জাতীয় দলের বাইরে। জাতীয় দলে ফেরা সম্ভব বলে মনে হয়?

এনামুল জুনিয়রঃ সবার স্বপ্ন থাকে জাতীয় দলে খেলার এবং পারফরম্যান্স দিয়ে আবার দলে ফেরার। আমি পারফর্ম করেই দলে ফিরতে চাই। আমাদের নির্বাচকরা যদি নজর রাখেন তাহলে অবশ্যই সম্ভব।

নিউজ ক্রিকেট ২৪ঃ বিপিএলের মত টুর্নামেন্টে দেখা যাচ্ছে তরুণ ক্রিকেটারদের প্রতি আগ্রহটা বেশি থাকে। অভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের কি আরো গুরুত্ব দেওয়া উচিত না? একজন অভিজ্ঞ ক্রিকেটার হিসেবে ব্যাপারটা কিভাবে দেখছেন?

এনামুল জুনিয়রঃ যেকোনো ফরম্যাটেই তরুণ এবং অভিজ্ঞতার মিশ্রণে দল তৈরি করতে হয়। বিপিএলেও এরকম অনেক দল আছে তরুণ এবং অভিজ্ঞতা সম্পন্ন। তবে একটা সত্যি কথা গুরুত্ব সময় তরুণদের চেয়ে অভিজ্ঞ ক্রিকেটাররা খুব ভালো ভাবে সামলে নিতে পারেন। আমি মনে করি তরুণদের সাথে অভিজ্ঞদেরকেও গুরুত্ব দেওয়া উচিত৷

নিউজ ক্রিকেট ২৪ঃ এবারের বিপিএলে আশরাফুল-শাহরিয়ার নাফীসের মত ক্রিকেটার দল পাননি৷ আপনার কাছে এ ব্যাপারটা কেমন?

এনামুল জুনিয়রঃ অবশ্যই খারাপ লাগার ব্যাপার। আমি নিজেও বিপিএলের দুই আসরে খেলিনি। আমার কাছে মনে হয় এই সমস্যার সমাধানের জন্য যদি আরো একটা-দুইটা দল বাড়ানো যায়। দল বাড়লে অবশ্যই সবাই সমান সুযোগ পাবে। আপনি যাদের নাম বললেন তারা অনেক অভিজ্ঞ, বিপিএলেও এরা অনেক ভালো পারফর্ম করেছে। এটা দুঃখজনক ব্যাপার। বিপিএলে আরো দুটি দল থাকলে ভালো হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »