নতুন বিতর্কের নাম ‘সাইফউদ্দিন’

https://scontent.fdac4-1.fna.fbcdn.net/v/t1.0-9/36386236_2027432020601594_1928619179817041920_n.jpg?_nc_cat=104&_nc_eui2=AeFY40879vpUlXD3TvLuwunYiYPt9keMWugjnmsYPL9A2_cQ-azY1GmWWQy36LFNFzNLAU2kdDYB9vV9Qwdjt7cfxuFbw0DGkcoiJ24B4pOm6Q&_nc_ht=scontent.fdac4-1.fna&oh=926e9b4229d9f6e3ffd66fe5510e3767&oe=5D672D33 »

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের বোলারদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে সফল মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। প্রতিপক্ষ দলকে ঘায়েল করতে ইংল্যান্ডের কন্ডিশনে বেশ আলো ছড়িয়ে যাচ্ছেন। তবে উইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচে পুরনো চোট মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে বলে জানা গেছে সাইফউদ্দিনের। কিন্তু এমন কথার সত্যতা কতটুকু?

অস্ট্রেলিয়ার মত শক্তিশালী প্রতিপক্ষের সামনে বাংলাদেশ দলের প্রয়োজন ছিল সাইফউদ্দিনের মত বোলারের তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। বিতর্কের শুরুটা এখানেই। সাইফউদ্দিনের চোট সংক্রান্ত খবর একেক জনের কাছে রয়েছে একেক রকম! ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান জানেন কাঁধে চোট পেয়েছেন সাইফউদ্দিন। অন্যদিকে দলের ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজনের কানে পৌঁছে সাইফউদ্দিনের চোট হ্যামস্ট্রিংয়ে। এখানেই থেমে নেই, দলের ফিজিও থিহান চন্দ্রমোহানের কাছে খবর এই অলরাউন্ডারের চোট পিঠে! জানা জায় উইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচে ২২ ওভারের সময় ফিল্ডিং করার সময় চোট পান সাইফউদ্দিন। কিন্তু এরপর কোনো চিকিৎসা না নিয়েই কীভাবে পুরো ইনিংস ফিল্ডিং করলেন? পাশাপাশি বল হাতেও করেছিলেন ৭ ওভার!

তার এই চোট নিয়ে ধোঁয়াশার কথা স্বীকার করে আকরাম খান বলেন, ‘আমি শুনেছি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচে সাইফউদ্দিন কাঁধে চোট পেয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচের আগে আমি ছিলাম না তাই জানি না। আমি আজ (গতকাল) তাদের সাথে (মোসাদ্দেক, সাইফউদ্দিন) কথা বলবো।’

ছোটোখাটো চোট আসলে এমন ম্যাচে তেমন কোনো ব্যাপার না বলেই মনে করেন আকরাম। ‘একবার আমি ৩টা ইনজেকশন নিয়ে খেলেছিলাম। শুধু আমিই নই বড় কোনো ইনজুরি না হলে ম্যাচ না খেলার কথা ভাবতোই না কেউ।’

গুঞ্জন রয়েছে ইচ্ছে করেই সাইফউদ্দিন অজিদের বিপক্ষে ম্যাচে খেলতে নামেননি। এই প্রসঙ্গে আকরাম খানের ভাষ্য, ‘আমার কাছে ব্যাপারটা এমন মনে হয় না। যতটুকু শুনেছি মোসাদ্দেক পরের ম্যাচেই খেলবে। সাইফউদ্দিনের হয়তো আরও একটু বিশ্রাম লাগবে। হয়তো পরের ম্যাচে (আফগানিস্তারনে বিপক্ষে) খেলতে পারবে না।’

‘এখন এত বেশি খেলা হয় যে ছোটখাটো চোট থাকবেই। মাশরাফিকে দেখে আপনার কি মনে হয়? সাকিব কী চোট ছাড়াই খেলছে? পেস বোলারদের আরও বেশি থাকে এটা। তামিমকে দেখেন এশিয়া কাপে ভাঙা হাত নিয়ে খেলেছে। মুশফিকও দুর্দান্ত ব্যাটিং করলো। ওইসব কিন্তু দলকে চাঙ্গা করেছে। এমন কিছু করলে পুরো দলই আসলে অনুপ্রাণিত হয়।’

এখানেই শেষ নয়, ঘ্রোয়া লিগে ইনজুরি নিয়েই আবাহনীর হয়ে ম্যাচ খেলার অভিযোগও রয়েছে এই অলরাউন্ডারের বিরুদ্ধে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »