দুর্দান্ত লড়াই করেও পারল না নেদারল্যান্ডস

নিউজ ক্রিকেট ২৪ ডেস্ক »

দুর্দান্ত লড়াই করেও পারল না নেদারল্যান্ডস

শুরুর কঠিন সময় ফখর জামান পার দিলেন চোয়ালবদ্ধ প্রতিজ্ঞায়। পরে চল্লিশের ঘরে পেলেন জীবন। সেটি বাঁহাতি ওপেনার কাজে লাগালেন দারুণভাবে। বাবর আজমের সঙ্গে দেড়শ রানের জুটিতে দলকে গড়ে দিলেন দৃঢ় ভিত।

শাদাব খান ও আগা সালমানের ঝড়ো ব‍্যাটিংয়ে শেষটায় রান এলো বানের জলের মতো। তিন ফিফটিতে দারুণ লড়াই করলেও শেষ পর্যন্ত পারল না নেদারল‍্যান্ডস।
রটারডামে মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) প্রথম ওয়ানডেতে ১৬ রানে জিতেছে পাকিস্তান। তিন ম‍্যাচের সিরিজে এগিয়ে যাওয়ার সঙ্গে পেয়েছে ১০ পয়েন্ট।

চতুর্থ দল হিসেবে আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ সুপার লিগে ছুঁয়েছে একশ পয়েন্টের মাইলফলক। অন‍্য তিন দল ইংল‍্যান্ড, বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান।
মন্থর শুরুর পর দারুণ সব শট খেলে ব‍্যবধান ঘুচিয়ে দেন ফখর। শেষ পর্যন্ত ১০৯ বলে ১২ চার ও এক ছক্কায় খেলেন ১০৯ রানের ইনিংস।

ক‍্যারিয়ারের সপ্তম সেঞ্চুরিতে দলকে পথ দেখানো বাঁহাতি এই ওপেনার জেতেন ম‍্যাচ সেরার পুরস্কার। ৮৫ বলে ৭৪ রানের দায়িত্বশীল ইনিংস খেলেন বাবর। শেষটায় ঝড় তোলেন শাদাব ও অভিষিক্ত আগা সালমান। তাতে পাকিস্তান পায় লড়াইয়ের পুঁজি।
মিডল অর্ডারে চমৎকার দুটি ইনিংস খেলেন টম কুপার ও স্কট এডওয়ার্ডস।

তাদের মতো পঞ্চাশ ছোঁয়া ইনিংস খেললেও ওপেনার বিক্রমজিত সিং বল খেলে ফেলেন অনেক। তিনশর বেশি রান তাড়ায় তিনি ৯৮ বল খেলে করেন ৬৫।
নিয়মিত বিরতিতে উইকেট নিয়ে ডাচদের কখনও সেভাবে ম‍্যাচে এগিয়ে যেতে দেয়নি পাকিস্তান। ৫১ রানে ৩ উইকেট নিয়ে পাকিস্তানের সফলতম বোলার অভিষিক্ত পেসার নাসিম শাহ। হারিস রউফ ৩ উইকেট নেন ৬৭ রানে।

টস জিতে ব‍্যাট করতে নেমে শুরুতে রানের জন‍্য ভুগতে হয় সফরকারীদের। প্রথম ৬ ওভারে দুই ওপেনার তুলতে পারেন কেবল ১০ রান। ভিভিয়ান কিংমার বলে এলবিডব্লিউর সফল রিভিউ নিয়ে ইমাম-উল-হককে ফেরায় নেদারল‍্যান্ডস। শুরুতে একটু সময় নেন বাবর। পাওয়ার প্লের শেষ দিক থেকে রানের গতি বাড়ানোর চেষ্টা করেন ফখর। কয়েকবার ব‍্যাটের কানায় লেগে একটুর জন‍্য ক‍্যাচ যায়নি ফিল্ডারের হাতে। ১৯তম ওভারে বাস ডে লেডের বল থার্ড ম‍্যানে ক‍্যাচ দিয়েও বেঁচে যান ফখর। কয়েকবারের চেষ্টায়ও বল মুঠোয় জমাতে পারেননি কিংমা। সে সময় ৪৩ রানে ছিলেন ফখর।

প্রথম ৪২ বলে কেবল ১৯ রান করা বাবর পরে বাড়ান রানের গতি। পঞ্চাশ স্পর্শ করেন ৫৮ বলে। তার আগেই ফিফটিতে পৌঁছান ফখর ৬৬ বলে। ১১১ বলে তিন অঙ্কে যায় তাদের জুটির রান। দেড়শ আসে ১৪১ বলে। সেঞ্চুরির পথে এগিয়ে যাচ্ছিলেন ফখর। সম্ভাবনা জাগিয়েছিলেন বাবরও। তবে লোগান ফন বিককে তুলে মারার চেষ্টায় ক‍্যাচ দিয়ে শেষ হয় বাবরের ইনিংস। ভাঙে ১৬৮ রানের জুটি। পাকিস্তান অধিনায়ক ৮৫ বলে ছয় চার ও এক ছক্কায় করেন ৭৪। সেঞ্চুরি ছুঁয়ে রান আউট হয়ে যান ফখর।

দৃঢ় ভিত কাজে লাগাতে পারেননি মোহাম্মদ রিজওয়ান ও খুশদিল শাহ। শেষের দিকে ঝড় তোলেন শাদাব। ২৮ বলে দুই ছক্কা ও চারটি চারে তিনি অপরাজিত থাকেন ৪৮ রানে। সালমান তিন চারে ১৬ বলে করনে ২৭। তাদের বিস্ফোরক ব‍্যাটংয়ে শেষ ১০ ওভারে আসে ৯৯ রান।

রান তাড়ায় শুরুটা ভালো হয়নি নেদারল‍্যান্ডসের। ওয়ানডেতে নিজের প্রথম ওভারেই উইকেট পান নাসিম। এলবিডব্লিউ করে দেন মাক্স ও’ডাউডকে। একটু পরে ওয়েসলি বারেসির অফ স্টাম্প উপড়ে ফেলেন হারিস। নেদারল‍্যান্ডস ম‍্যাচে ফেরে বিক্রমজিতের সঙ্গে তৃতীয় উইকেটে কুপারের চমৎকার জুটিতে। বোলারদের উপর চড়াও হয়ে দ্রুত এগোচ্ছিলেন কুপার। দ্রুত বাড়ছিল রান। রউফের বলে ব‍্যাটের কানায় লেগে বাবরের হাতে এই মিডল অর্ডার ব‍্যাটসম‍্যানের বিদায় ভাঙে ৯৭ রানের জুটি। যেখানে কুপারের অবদান দুই ছক্কা ও ছয় চারে ৫৪ বলে ৬৫।

একটু পরেই বিক্রমজিতের মন্থর ইনিংসের সমাপ্ত টানেন মোহাম্মদ নওয়াজ। এরপর লড়াই চালিয়ে যান নেদারল‍্যান্ডসের নতুন অধিনায়ক এডওয়ার্ডস। পাকাপাকিভাবে নেতৃত্ব পাওয়ার পর ৬০ বলে খেলেন ৭১ রানের চমৎকার ইনিংস। তবে অন‍্য প্রান্তে পাননি যোগ‍্য সঙ্গ। তাই শেষ ১০ ওভারে ৯৪ রানের সমীকরণ মেলাতে পারেনি নেদারল‍্যান্ডস। ইংল‍্যান্ডের ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলায় দলে নেই মূল খেলোয়াড়দের সাত জন। খর্ব শক্তি নিয়েও লড়াই কম করেনি নেদারল‍্যান্ডস। আগামী বৃহস্পতিবার একই মাঠে হবে সমতা ফেরানোর লড়াইয়ে নামবে দলটি।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »