fbpx

ক্রিকেট ফেরাতে বিকল্প পথের সন্ধান করতে বললেন সাবেক বিসিবি সভাপতি

নিউজ ডেস্ক »

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

করোনা ভাইরাসের কারণে এক এক করে বছরের প্রায় সবগুলো খেলাই স্থগিত কেছে বিসিবি। মিরপুর রেড জোন অর্থাৎ বিপদজনক এলাকার আওতাধীন হওয়ায় গত ৩ মাস ধরে ক্রিকেটাররা অনুশীলন করার সুযোগও পাচ্ছেননা। বিসিবি থেকে শর্তসাপেক্ষে মিরপুরে অনুশীলনের অনুমতি দিলেও রেড জোন হওয়ায় সেখানে যাচ্ছেননা ক্রিকেটাররা। এমন সময় মিরপুরকে বাদ দিয়ে ক্রিকেটকে ফেরাতে নতুনভাবে পরিকল্পনা করার জন্য বলেছেন বিসিবির সাবেক সভাপতি সাবের হোসেন চৌধুরী।

ক্রিকেট বন্ধ থাকায় আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে সব বোর্ডই। বিসিবির কাছে ব্যাপক অঙ্কের রিজার্ভ অর্থ থাকলেও সেটা কোন স্থায়ী সমাধান নয়। ক্রিকেটকে ফেরাতে সরকারের সাথে সমন্বয় করে কাজ করে যেতে হবে বলে জানান তিনি। এদিকে বিশ্বের বহু স্থানেই বিভিন্ন ফুটবল টুর্নামেন্ট শুরু হয়েছে। ক্রিকেট খেলা শরীরের সাথে স্পর্শ ছাড়াই খেলা যায় যা ফুটবল কিংবা রাগবি খেলায় সম্ভব নয়। যেহেতু ফুটবল শুরু হয়েছে এবং আগামী মাসে ক্রিকেটও ফিরছে ইংল্যান্ডে সেহেতু বিসিবিকেও বিকল্প ভাবতে হবে বলে জানান সাবেক এই বিসিবি প্রধান।

বৃহস্পতিবার (২৫’শে জুন) দ্য ডেইলি স্টারের সাথে সাক্ষাৎকারে এসমস্ত কথা জানান সাবের হোসেন চৌধুরী। সঠিক এবং নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা বজায় রেখেই বিসিবিকে ভাবার পরমর্শ দিয়েছেন তিনি। সাবের হোসেন চৌধুরী বলেন,’স্পষ্টতই, নিরাপত্তা প্রথম এবং সর্বাধিক অগ্রাধিকার এবং লীগ পুনরায় শুরু করার আগে আমাদের একটি নতুন পরিবেশ তৈরি করতে হবে। ক্রিকেট কোনও শরীরের যোগাযোগের খেলা নয়, যদি আপনি এটি রাগবি বা ফুটবলের সাথে তুলনা করেন। আধুনিকীকরণ প্রযুক্তি এবং সুবিধা থাকা এবং খেলোয়াড়দের নিয়মিত পরীক্ষা করা জরুরী।’

‘আপনি যদি খেয়াল করে থাকেন, ইতিমধ্যে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে বেশ কয়েকটি ক্রীড়া লীগ ইতিমধ্যে কয়েকটি ক্রিকেট বোর্ড খেলা পুনঃস্থাপনের দিকে আসতে শুরু করেছে। মিরপুর রেড জোনে থাকায় প্লেয়াররা এখন তিন মাসেরও বেশি সময় ক্রিকেটের বাইরে থাকায় বোর্ড বিকল্প স্থান প্রস্তুত করতে এবং কার্যক্রম শুরু করতে পারে। এটি এমন নয় যে আমি বাস্তবতা সম্পর্কে সচেতন নই, তবে নতুন সাধারণের মুখোমুখি হওয়ার জন্য আমাদেরও উপায় খুঁজে বের করতে হবে। স্পষ্টতই, বিসিবি সরকারের অধীনে রয়েছে এবং তাদের নির্দেশাবলী অনুসরণ করা দরকার, তবে পরিস্থিতি কাটিয়ে ওঠার উপায়ও তাদের খুঁজে পাওয়া উচিত।’ আরও যোগ করেন সাবের হোসেন চৌধুরী।

এছাড়াও করোনা ভাইরাস পরবর্তী সময়ে বেশ কিছু সিরিজ আয়োজন করতে হবে। বিশেষ করে ভারত, অস্ট্রেলিয়া এবং ইংল্যান্ডের সাথে ম্যাচ খেলতে হবে যা আর্থিকভাবে চাঙ্গা করে তুলবে বোর্ডকে। সেক্ষেত্রে দরকার সুন্দর এবং শক্ত কূটনীতিক শক্তি। সে বিষয়ে বিসিবিকে নজরদারি করার পরামর্শও দিয়েছেন সাবেক বিসিবি বস। সাবের হোসেন চৌধুরী বলেন, ‘মহামারী পরবর্তী বিশ্বে আরও দ্বিপক্ষীয় সিরিজ নিয়ে আলোচনা হবে এবং আমি জানি না যে বিসিবি অন্যান্য বোর্ডগুলির সাথে কূটনৈতিক সম্পর্ক বজায় রাখছে কিনা। আপনি কখনও জানেন না, শীর্ষ ক্রিকেট বোর্ডগুলি আবারো বড় তিনটি প্রস্তাব নিয়ে আসতে পারে এবং বিশ্ব ক্রিকেটে দুটি বিভাগও তৈরি করতে পারে। কূটনৈতিক সম্পর্ক বাড়ানো ও বজায় রাখা জরুরি। আরও একটি বিষয়, ধরা যাক সৌরভ গাঙ্গুলি পরবর্তী আইসিসির সভাপতি হন, আমরা তার সাথে কতটা যোগাযোগ রক্ষা করেছি? ইতিবাচক মানসিকতা নিয়ে আমাদের এ জাতীয় ক্ষেত্রগুলি নিয়ে ভাবতে হবে।’

নিউজ ক্রিকেট/কেএমএএইচ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »