ক্রিকেটের টাকায় চলছে শ্রীলংকার সব খেলা

নিউজ ক্রিকেট ২৪ ডেস্ক »

!

আগেই তৈরি হয়েছিল অর্থনৈতিক সংকট। এখন রাজনৈতিক সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে লংকানরা। যেখানে এক টুকরো রুটি কেনার সামর্থ্য নেই অনেকের । অথচ, সেই দ্বীপ দেশটির খেলাধুলা চলছে জোরেশোরে। এশিয়া কাপ ক্রিকেট এবং সাফ অনূর্ধ্ব-১৭ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের স্বাগতিক হয়েছে তারা। শত প্রতিকূলতার মাঝেও থেমে নেই শ্রীলংকার খেলাধুলা। সরকার দেশকে দেউলিয়া ঘোষণা করলেও ক্রিকেট, ফুটবল, কমনওয়েলথ গেমস-সব জায়গাতেই সরব উপস্থিতি লংকানদের। কেননা, ক্রীড়াঙ্গনকে বাঁচিয়ে রেখেছে শ্রীলংকা ক্রিকেট বোর্ড (এসসিবি)। ফার্নান্দো রুচির মতো জিমন্যাস্টসসহ অনেক অ্যাথলেটের কমনওয়েলথ গেমসে খেলার স্বপ্ন পূরণ করেছে লংকান বোর্ড।

১৪টি ইভেন্টে অংশ নিতে ১১৪ জন অ্যাথলেটের দল পাঠানোর জন্য সরকারের কাছে আবেদন করে সাড়া পাওয়া যায়নি। একসময় হাল ছেড়ে দিয়েছিলেন লংকান স্পোর্টসের কর্তাব্যক্তিরা। তাদের পাশে দাঁড়ায় ক্রিকেট বোর্ড। কমনওয়েলথ গেমস ছাড়াও শ্রীলংকার অন্য খেলাধুলাতেও সহযোগিতায় হাত বাড়িয়ে দিয়েছে তারা।

বার্মিংহাম কমনওয়েলথ গেমস কাভার করতে আসা শ্রীলংকান সাংবাদিক কারুপিয়া রামকৃঞ্চ সেদেশের ক্রীড়াঙ্গনের আসল চিত্রটা ফুটিয়ে তোলেন এভাবেই, ‘আমাদের ক্রিকেট বোর্ডই পৃষ্ঠপোষকতা করছে স্থানীয় অ্যাথলেটদের। কমনওয়েলথ গেমসে যারা খেলতে এসেছেন, তাদের সব খরচ দিচ্ছে ক্রিকেট বোর্ড।’ তিনি যোগ করেন, ‘রাজনৈতিক এবং অর্থনৈতিক সমস্যার কারণে আমাদের দেশের কমনওয়েলথ গেমসে অংশ নেওয়াটা অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়ে যায়। সরকার থেকে বলা হয়েছে যে, তারা ব্যয় বহন করতে অক্ষম। তখন ক্রিকেট বোর্ড সিদ্ধান্ত নেয় যে, কমনওয়েলথ গেমসে অংশগ্রহণকারী পুরো দলকে সহায়তা দেবে।’

শুধু কমনওয়েলথ গেমসই নয়, পুরো দেশের স্পোর্টস চালানোর জন্য প্রায় ৩৫০ হাজার ইউএস ডলার সহায়তা দিয়েছে শ্রীলংকান ক্রিকেট বোর্ড। কমনওয়েলথ গেমসের জন্য ৬২ হাজার ৭২০ ডলার এবং শ্রীলংকার স্পোর্টস ডেভেলপমেন্টের জন্য ২৭৮ হাজার ৭৫৬ ইউএস ডলার দিয়েছে বোর্ড। বর্তমানে শ্রীলংকার ক্রীড়াঙ্গনের চালিকাশক্তি বলা যেতে পারে দেশটির ক্রিকেট বোর্ডকে। কারণ দুই মাসে দেশটিতে তিনজন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী দায়িত্ব পালন করেছেন। অর্থের অভাবে ফুটবল কোচের সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করতে পারেনি তারা। এরপর এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলে নতুন কোচ নিয়োগ দেয় শ্রীলংকা। আর অস্ট্রেলিয়ার পর পাকিস্তানের বিপক্ষে ঐতিহাসিক টেস্ট জয় করা লংকান বোর্ড অর্জিত সব লভ্যাংশ দিয়ে দিয়েছে বাকি খেলাধুলার জন্য। এভাবেই টিকে রয়েছে শ্রীলংকার ক্রীড়াঙ্গন।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »