কোয়ালিটি স্পিন মোকাবিলায় কৌশলে জোর দিচ্ছি – মিঠুন

নিউজ ক্রিকেট ২৪ ডেস্ক »

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বর্তমান ক্রিকেট বিশ্বে বড় আতঙ্কের নাম ভারতীয় স্পিন এট্যাক। বিশ্বের বাঘা বাঘা ব্যাটসম্যানরা যাদের কাছে পরাস্ত হয়। ঘরের মাঠে তাদের হারানোতো আরো বিরাট ব্যাপার। দক্ষিণ আফ্রিকার মতো দলকেও ঘরের মাটিতে নাস্তানাবুদ করেছে সাম্প্রতিক একটি সিরিজে। এবার স্পিন থাকবার মুখে বাংলাদেশ দল। কিভাবে মোকাবিলা করবেন বা পরিকল্পনা কি এ সম্পর্কে গণমাধ্যমে নিজের মনোভাব ব্যক্ত করেন মোহাম্মদ মিঠুন।

গণমাধ্যমের বিবৃতিতে তিনি বলেন – টেস্টে ভারতীয় স্পিন এট্যাক সামলাতে বাংলাদেশ দল কৌশলগত দিকগুলো নিয়ে কাজ করছে। মোহাম্মদ মিঠুন বলেন দলের সবাই আশা করছেন তাদের ব্যাটিং কোচ নেইল ম্যাকেঞ্জি ভারতীয় স্পিনারদের ঠেকানোর ব্যাপারে সহায়তা করবেন।

বোলারদের মধ্যে ‘স্পিন টুইনস’ খ্যাত অশ্বীন-জাদেজাকেই হুমকি মনে করছেন তিনি৷ এ ব্যাপারে মিঠুন বলেন – ‘এটি ভারতের ফাস্ট বোলিং ইউনিট, বর্তমানে যেটি টেস্টের জন্য মূল আতঙ্ক সবার কাছে, তবে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানরা ২ম্যাচ সিরিজে ভারতের স্পিন টুইনস অশ্বিন-জাদেজা কে মোকাবিলা করার ব্যাপারে এখন অনেকটাই সচেতন’। যদিও বা শামি,যাদব এবং ঈশান্ত শর্মাকে অনেকটা আক্রমনাত্মক মনে হলেও মিঠুন সবচাইতে বেশি হুমকিস্বরূপ মনে করছেন অশ্বিন-জাদেজাকে। এ ব্যাপারে তিনি বলেন – ‘আমরা সবাই তাদের শক্তিশালী বোলিং লাইনআপ সম্পর্কে জানি। আমরা মূলত তাদের স্পিন এট্যাক সামলানোর জন্য আলাদাভাবে কাজ করছি, যদিও বা প্রথম দুদিন পিচ ব্যাটিং – বান্ধব হবে, তবে যখন তাদের স্পিনাররা আসবে তখন তারা প্রতিপক্ষকে বোলিং এট্যাকে বিধ্বস্ত করবে। ‘

এ ব্যাপারে কি পরিকল্পনা জানতে চাইলে মিঠুন বলেন –‘ আমরা আমাদের কিছু কৌশলগত দিকে আলোকপাত করছি তাদের মোকাবিলা করার জন্য। ‘ এবং তিনি মনে করছেন ব্যাটিং কোচ নেইল ম্যাকেঞ্জি এ ব্যাপারে তাদের সাহায্য করবেন।

‘কৌশলগত ব্যাপারগুলো ড্রেসিং রুমের ভিতরেই থাকতে দিন’ – কোনপ্রকার গোপনীয়তায় না জড়াতে চেয়ে বলেছিলেন মিঠুন।

ভারতের দুর্বলতার ব্যাপার প্রশ্ন করা হলে বলেন প্রতিপক্ষের দুর্বলতার চেয়ে তিনি নিজের সামর্থ্যের দিকে বেশি জোর দেন। এ ব্যাপারে তিনি বলেন –

‘আমরা তাদের দুর্বলতা খোঁজার পরিবর্তে নিজেদের সামর্থ্যের দিকে বেশি জোর দিচ্ছি। ঘরের মাঠে তাদের বিপক্ষে কোন দলই ভালো করেনি(সাম্প্রতিক অতীতে)। আমরা এখানে ভালো কিছু করার চেষ্টা করছি। অবশ্যই এটি তেমন একটা সহজ হবেনা এবং আমাদের অনেক পরিশ্রম করা প্রয়োজন’।

‘তাদের যে পাঁচজন বোলার আছেন আমরা কাউকেই দুর্বল ভাবতে পারছিনা, কেননা তারা সবাই বিশ্ব মানের’।

মিঠুন তরুণ বোলারদের উপর আস্থা রাখছেন৷ তিনি মনে করেন তরুণ বোলাররা একতাবদ্ধ হয়ে পারফর্ম করলে ম্যাচ জেতার জন্য ২০ উইকেট সহজে নিতে পারবেন সবাই মিলে। এ ব্যাপারে তিনি বলেন –

‘যদি আমরা শৃঙ্খলার সাথে একতাবদ্ধ হয়ে বোলিং এট্যাক করতে পারি তবে আমার মনে হয় আমরা ২০ উইকেট খুব সহজে নিতে পারবো’।

যদিও বা ভারতীয়রা পছন্দের তালিকায় শীর্ষে থাকবেন সমর্থকদের কাছে, তবে দিল্লি ম্যাচ জয়ের স্মৃতি থেকে অনুপ্রেরণা নিচ্ছেন মিঠুন।

‘অতীতের দিকে যদি আমরা তাকাই তবে দেখবেন কেউ আমাদের কোন সুযোগ দেয়নি যখন টি-টোয়েন্টিতে ভারতকে তাদের ঘরের মাঠে পরাজিত করি। ‘

‘তবে আমাদের খেলোয়াড়দের সেই বিশ্বাস ছিলো। শেষ ম্যাচগুলোতে সুযোগ থাকা সত্ত্বেও জিততে না পারায় আমরা হতাশাগ্রস্ত, তবে বর্তমানে আমরা টেস্ট সিরিজে ভালো করার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি ‘।

আসন্ন ১৪ই নভেম্বর ইন্দোরে শুরু হবে প্রথম টেস্ট। টেস্টের পূর্বে অনেকটা আত্নবিশ্বাসী মনে হলো টাইগারদের। প্রতিফলন ম্যাচেই উন্মোচিত হবে। আগাম শুভ কামনা রইলো।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »