কেমন কাটলো দক্ষিণ আফ্রিকার বিশ্বকাপ

https://scontent.fdac4-1.fna.fbcdn.net/v/t1.0-9/36386236_2027432020601594_1928619179817041920_n.jpg?_nc_cat=104&_nc_eui2=AeFY40879vpUlXD3TvLuwunYiYPt9keMWugjnmsYPL9A2_cQ-azY1GmWWQy36LFNFzNLAU2kdDYB9vV9Qwdjt7cfxuFbw0DGkcoiJ24B4pOm6Q&_nc_ht=scontent.fdac4-1.fna&oh=926e9b4229d9f6e3ffd66fe5510e3767&oe=5D672D33 »

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এইবারের বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকাকে কেউ হট ফেবারিট হিসেবে ধরেনি। আবার কেউ দক্ষিণ আফ্রিকাকে ফেলেও দেয়নি। সেমিফাইনালে ৪টি দলের প্রেডিকশনের কথা বললে সকলে সবার আগে বলতো অষ্ট্রেলিয়া, ভারত ও ইংল্যান্ড। আর চতুর্থ দলটি কেউ যেন নিশ্চয়তা দিতো না।‌ কেউ বলতো নিউজিল্যান্ড কেউ বলতো পাকিস্তান কিংবা বাংলাদেশ, দক্ষিণ আফ্রিকার নাম। দক্ষিণ আফ্রিকাকে একেবারে ফেলে দেওয়া যেত না কারণ এই দলটাতে ছিলো হাশিম আমলা, কুইন্টন ডি কক, ফাফ ডু প্লেসি, ইমরান তাহির, ডেল স্টেইন, কাগিসো রাবাদার মতো খেলোয়াড়। হ্যাঁ, তবে অভাব যে ছিলো‌ না তা কিন্তু নয়। এই দলটাতে মি ৩৬০° খ্যাত এবি ডি ভিলিয়ার্স নামক বিশ্বসেরা খেলোয়াড় ছিলেন না। ২০১৫ বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকা সেমি ফাইনালিস্ট ছিলো। যদিও সেমি বাধা পেরোতে পারে নি। এমনিতেই দক্ষিণ আফ্রিকা চোকার্স নামে পরিচিত। তারা নক আউটে বাদ পড়ে যায়। তবে ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার সেমি ফাইনালে উঠার পেছনে অনেক বেশি অবদান ছিলো মি ৩৬০° খ্যাত এবি ডি ভিলিয়ার্সের। এবারের বিশ্বকাপে সেই ডি ভিলিয়ার্স ছিলেন না। ডি ভিলিয়ার্সের অভাব বেশ ভালোভাবেই টের পেয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা।

চলুন এবার দেখে নেয়া যাক এবারের বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার পারফরম্যান্স:

ম্যাচ: ৯
জয়: ৩
হার: ৫
ড্র: ০
কোনো ফলাফল হয়নি: ১
পয়েন্ট:৭

দলীয় সর্বোচ্চ: ৩২৫/৬, অষ্ট্রেলিয়ার‌ বিপক্ষে, ম্যানচেস্টারে ( ৬ জুলাই ২০১৯)

দলীয় সর্বনিম্ন: ২৯/২, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে, সাউদাম্পটন ( ১০ জুন ২০১৯ )

ম্যাচ সমষ্টি:
সর্বোচ্চ: ৬৪০, প্রতিপক্ষ অষ্ট্রেলিয়া, উইকেট: ১৬, ওভার: ৯৯.৫, ম্যানচেস্টার ( ৬ জুলাই ২০১৯ )

সর্বনিম্ন: ২৯, প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ, উইকেট: ২, ওভার: ৭.৩, সাউদাম্পটন ( ১০ জুন ২০১৯ )

সর্বোচ্চ জয়: রানে: ১০ রানে, অষ্ট্রেলিয়ার‌ বিপক্ষে, ম্যানচেস্টার ( ৬ জুলাই ২০১৯ )

উইকেটে: ৯ উইকেটে, আফগানিস্তানের বিপক্ষে, কার্ডিফে ( ১৫ জুলাই ২০১৯ )

সর্বোচ্চ অতিরিক্ত রান: ২৪, অষ্ট্রেলিয়ার ‌বিপক্ষে, ম্যানচেস্টার ( ৬ জুলাই ২০১৯ )

দক্ষিণ আফ্রিকার এবারের বিশ্বকাপে তাদের দলের সেরা ব্যাটসম্যান অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসি। দেখে নেয়া যাক কেমন ছিলো ফাফ ডু প্লেসিস এর এবারের বিশ্বকাপ পারফরম্যান্স:

ম্যাচ: ৯
ইনিংস: ৮
নট আউট: ২
রান: ৩৮৭
সর্বোচ্চ: ১০০
গড়: ৬৪.৫০
স্ট্রাইক রেট: ৮৯.৫৮
হাফ সেঞ্চুরি: ৩
সেঞ্চুরি: ১
বাউন্ডারি: ৩৬
ওভার বাউন্ডারি: ৪

দক্ষিণ আফ্রিকার এবারের বিশ্বকাপে সেরা বোলার ছিলেন ক্রিস মরিস। দেখে নেয়া যাক ক্রিস মরিসের এবারের বিশ্বকাপ পারফরম্যান্স:

ম্যাচ: ৮
ইনিংস: ৭
ওভার: ৬৩.৪
মেইডেন: ৫
রান: ৩৪১
উইকেট: ১৩
সেরা বোলিং ফিগার: ৩/১৩
গড়: ২৬.২৩
ইকোনমি: ৫.৩৫
স্ট্রাইক রেট: ২৯.৩
৫ উইকেট: ০

সত্যি বলতে ক্রিকেট বিশ্বে চোকার্স খ্যাত দক্ষিণ আফ্রিকার এবারের বিশ্বকাপটা একদম সাদামাটা গিয়েছে। তবে অনেক আগে সেমির রেস থেকে ছিটকে যাবার পরও দক্ষিণ আফ্রিকারা সেমি ফাইনালের রেসে টিকে থাকা বাংলাদেশের চেয়ে এক ধাপ এগিয়ে থেকে সপ্তম অবস্থানে থেকে শেষ করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। হয়তো কারো প্রত্যাশা ছিলো দক্ষিণ আফ্রিকা অনেক ভালো করবে আবার কারো প্রত্যাশা ছিলো দক্ষিণ আফ্রিকা সাদামাটা পারফরম্যান্স করবে। তবে দক্ষিণ আফ্রিকা এবারের বিশ্বকাপে অষ্ট্রেলিয়াকে‌ হারানোই তাদের সেরা সাফল্য। তবে দক্ষিণ আফ্রিকা দলের যথেষ্ট সামর্থ্য আছে আবারো খুব দুর্দান্তভাবে ফিরে আসার। হয়তো সময় লাগবে গুছিয়ে নিতে। তবে তাদের এ ব্যর্থতা ভুলে আরো‌ দুর্দান্তভাবে ফিরে আসতে হবে।

-নাসিফুল হাসান সৌমিক

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »