একাদশে না থেকেও প্রেস কনফারেন্স সামলাতে হলো সানিকে

মমিনুল ইসলাম »

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এবারের টুর্নামেন্টে এক হতশ্রী পারফরম্যান্স লক্ষ্য করা গেছে রংপুর রেঞ্জার্সের কাছে। ছয় ম্যাচ খেলে কেবল মাত্র জয় একটিতে। তবে রংপুরের সবচেয়ে আলোচনার জায়গা চলে এসেছে তাঁদের অধিনায়কত্ব নিয়ে। সর্বশেষ তিন ম্যাচে তিন অধিনায়ক। আগের ম্যাচে জয় তুলে দেয়া টম অ্যাবলের জায়গায় দায়িত্ব দেয়া হয়েছে অজি তারকা শেন ওয়াটসনের কাঁধে। এমনকি জয় এনে দেয়া অধিনায়কের জায়গাই হয়নি পরের ম্যাচে। ওয়াটসনকে ভাগ্য বদলাতে দিলেও হয়নি তা ফলপ্রসূ হয়নি বরং খুলনার কাছে হেরেছে ৫২ রানে। ব্যর্থতার চাপ সামলাতে সংবাদ সম্মেলনে পাঠানো হয় একাদশের বাহিরে থাকা আরাফাত সানিকে। তাই তো একাদশে না থেকেও লড়তে হলো আরাফাত সানিকে।

রংপুরের ভাগ্য বদলাতেই আনা হলো অজি তারকা ওয়াটসনকে তবে তাতেও যে ভাগ্য বদলায়নি। ব্যাট হাতে একদমই সফল ছিলেন না ওয়াটসন। তাঁর আসায় দল বেশ আশাবাদী ছিলো। তিনি বলেন, ‘ বেশ প্রত্যাশা ছিলো। কিন্তু এটা টি-টোয়েন্টি খেলা। আর আমরা এখানে দল হয়ে ভালো খেলতে পারছি না। ‘

দল হিসেবে ভালো না খেলার কারন উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘ টি-টোয়েন্টি স্বল্প সময়ের খেলা। আমরা আসলে আমাদের মোমেন্টামটা ধরতে পারছি না। কোনদিন বোলিং খারাপ হচ্ছে আবার কোনদিন ব্যাটিং খারাপ হচ্ছে। কোন না কোন দিকে ঘাটতি থেকেই যাচ্ছে। ক্রিকেটাররা সর্বোচ্চ চেষ্টায় করছে কিন্তু দল হয়ে ভালো না করতে পারাটাই মূল সমস্যা। ‘

এখন পর্যন্ত টুর্নামেন্টের ৬ ম্যাচে তিন অধিনায়ক দিয়ে চালিয়েছে ম্যাচ। এটা দলের পারফরম্যান্সে প্রভাব ফেলছে কি না এমনটা জানতে চাইলে সানি বলেন, ‘ আসলে বিষয়টা টিম ম্যানেজমেন্টের। অধিনায়ক যেই হোক না কেন একজন খেলোয়াড় হিসেবে আমরা সেরা চেষ্টাটাই করি। তাই এসব ব্যাপার সমস্যা হয়। অধিনায়ক পরিবির্তন খুব বেশি প্রভাবিত করছে বলে মনে হয় না। কারন আমাদের দায়িত্ব দলের জন্য সেরাটা খেলা। আর অধিনায়ক পরিবির্তন বিষয়টা টিম ম্যানেজম্যান্টের উপরে। ‘

হঠাৎই ওয়াটসনকে ডেকে এনে অধিনায়কত্ব দেয়াটা কঠিন হলেও সানি বলছেন টিম মিটিংয়ে তিনি মুগ্ধ ৷ তিনি বলেন, ‘ যখন টিম মিটিং হচ্ছিলো তখন তার কাছে অনেক শেখার আছে। দল জেতার জন্য মোটিভেট করতে যা যা দরকার সে তাই করেছে ব্যক্তিগতভাবে ওর কথা গুলো আমার কাছে ভালো লেগেছে। ওর বডি ল্যাঙ্গুয়েজ ছিলো অন্যরকম। এমনিতেই তো আর ওরা ওয়ার্ল্ড ডোমিনেট করেনি। ওর একটা কথাতেই বুঝেছি। যখন বললো উইকেট যেমনই হোক সেটলরাটা দিতে হবে আর পজেটিভ থাকতে হবে। ‘

একাদশের কাউকে না পাঠিয়ে অপেশাদারিত্ব দেখালো রংপুর। এমন কথায় সানি বলেন, ‘ হারলে আসলে সব ডাউন থাকে। আমি ম্যাচ না খেললেও বাহিরে থেকে বেশি জাজ করতে পেরেছি যে কি হয়নি আর কি হয়েছে। অনফিল্ড আর অফলিল্ড দুইটা ভিন্ন। অফফিল্ডে থেকে আমি বলতে পারবো কোথায় কি সমস্যা ছিলো। আর দায়িত্ব নিতে চাওয়াটায় সমস্যার কিছু নেই। হয়তো একাদশের কেউ আসেনি কিন্তু আমিও তো টিম মেম্বার। এমন তো কোথাও লেখা নেই যে একাদশেরই কেউ আসতে হবে। ‘

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »