একই মানুষ পেশাদার সাংবাদিক আর পেশাদার ক্রিকেটারের ভূমিকায়!

দুর্জয় দাশ গুপ্ত »

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সৈয়দ আবিদ হোসেন সামি এই নামটা অনেকেই কাছেই পরিচিত। একাধারে একজন ক্রীড়া ধারাভাষ্যকার, ক্রিকেট বিশ্লেষক আবার একজন উপস্থাপক। একটা মানুষের কতটা রূপ! তবে এই মানুষের আরো একটা পরিচয় আছে৷ অনেকেই হয়তো জানি না যে সৈয়দ আবিদ হোসেন সামি একজন পেশাদার ক্রিকেটার।

চলছে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ। এ উপলক্ষে ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের নিয়ে বিশেষ এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে বেসরকারি টিভি চ্যানেল গাজী টেলিভিশন। এই অনুষ্ঠানে ক্রিকেটের ভালো-মন্দ কিংবা ছোট-বড় জিনিসগুলো হয়ে উঠছে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু। এর ফলে ক্রমশ সমৃদ্ধ হচ্ছে আমাদের ক্রিকেট অঙ্গন।

গাজী টেলিভিশনের বিপিএল নিয়ে বিশেষ এক অনুষ্ঠানের এবারের আসরে ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের মধ্যে আছেন এই সময়ের জনপ্রিয় সৈয়দ আবিদ হোসেন সামি। অনেকেই তাকে ধারাভাষ্যকার এবং ক্রিকেট বিশ্লেষক হিসেবে চেনে। বিপিএলের এই আসরে মাঠ থেকে বিশ্লেষণ করতে দেখা যাচ্ছে তাকে। এর বাইরে তিনি কাজ করছেন একটি বেসরকারী টিভি চ্যানেলে ক্রীড়া উপস্থাপক হিসেবেও৷ কিন্তু এর চেয়েও অবাক করা আরেকটা ব্যাপার আছে। সামির পদযাত্রা এখানেই থেমে নেই। তিনি একজন পেশাদার ক্রিকেটার খেলেছেন প্রথম বিভাগ ক্রিকেট লিগ।

গত রবিবার অর্থাৎ ৫ জানুয়ারি রবিবার বিকেএসপিতে প্রথম বিভাগ ক্রিকেট লিগে পূর্বাচল এস সি মুখোমুখি হয় কলাবাগান ক্রীড়া চক্রের৷ ঐ ম্যাচে পূর্বাচল এস সি’র মাঠে নামেন সৈয়দ সামি৷ দল খারাপ করলেও সামির পারফরম্যান্স ছিলো উল্লেখযোগ্য। দলের সবাই যখন আসা-যাওয়ার মিছিলে ব্যস্ত সামি তখন একপ্রান্ত আগলে রেখে খেলে গেছেন। শেষ পর্যন্ত পূর্বাচল অলআউট হলেও সামি ছিলেন অপরাজিত।


কেবল ব্যাট হাতে যে লড়াই করেছেন এমনটা না, বল হাতেও লড়েছেন দলের হয়ে৷ দারুণ লাইন-লেন্থ বজায় রেখে বলা করা সামি তুলে নিয়েছেন প্রতিপক্ষের গুরুত্বপূর্ণ একটি উইকেট।

ম্যাচ শেষে একসাথে অনেক ভূমিকায় কাজ করার ব্যাপারে সামি জানান যদি ইচ্ছে থাকে তবে উপায়ও হয়। তবে এরপরেই কন্ঠে অনুযোগের সুর টেনে সামি বলেন, ‘আমাদের প্রচলিত ধারণার বাইরে ক্রিকেট খুব কঠিন একটি খেলা আসলে। বিশেষ করে ওই পর্যায়টা একজন চাকুরীজীবীর জন্য। যেমন এই যে আজকেও রাত ১ টা পর্যন্ত সংবাদ পড়ে আবার ৫ টায় উঠে সঠিক সময়ে ম্যাচ খেলতে হয়েছে।’

‘অফিস ডিউটির আগে আমি মূলত প্র্যাকটিস করি৷ এবার বিপিএল থাকায় শেষদিকে আমি ঠিকমত প্র্যাকটিস করতে পারিনি৷ তবে আমি একটা কথা পরিষ্কার করে বলতে চাই, ক্রিকেট কোন সহজ খেলা নয়৷ অনেক সময় খেলোয়াড়দের সমালোচনা করতে গিয়ে আপত্তিজনক কথাও চলে আসে৷ কিন্তু আমি আমার টপ লেভেলে খেলার অভিজ্ঞতা থেকে একটা ব্যাপার বলছি আমাদের দেশে যে পরিমাণ লেস ফ্যাসিলিটির মধ্যে দিয়ে একটা ছেলেকে ক্রিকেট খেলতে হয় তা কেউই নিজেরা খেলতে না আসলে বুঝতে পারবেন না’ – যোগ করেন সামি৷

এছাড়াও ঘরোয়া ক্রিকেটের মান, মাঠের অভাব, ক্রিকেটারদের পর্যাপ্ত টাকা না পাওয়া নিয়ে কথা বলেছেন আবিদ হোসেন সামি। এছাড়া একজন ক্রিকেটারকে ন্যায্য সম্মান দেওয়ার অনুরোধও করেছেন তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »