ইংল্যান্ডে ক্রিকেট ফেরানোয় সমালোচিত বরিস জনসন

নিউজ ডেস্ক »

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

যুক্তরাজ্যে থেমে নেই করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দিনের পর দিন বেড়েই চলেছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। কিন্তু এই প্রতিকূল পরিস্থিতির মাঝেও ক্রিকেট ফেরানোর পক্ষ্যে সাফাই নিয়েছে দেশটির সরকার। আগামী জুলাই মাসে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ঘরের মাঠে তিন ম্যাচ টেস্ট সিরিজ খেলতে যাচ্ছে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট দ্রতু মাঠে ফেরানোর জন্য কাজ শুরু করলেও ঘরোয়া ক্রিকেট এখনই শুরু করছে না ইংল্যান্ড। আপাতত বন্ধ খাকছে ঘরোয়া ক্রিকেট। আর এই কারণে জোর সমালোচনার মুখে পড়েছেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। তাঁর এই দ্বিমুখী নীতির সঙ্গে একমত হতে পারেননি ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট অনেক ব্যক্তিবর্গ।

ক্রিকেটের মাধ্যমে করোনা সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পেতে পারে সেই কারণে ঘরোয়া ক্রিকেটের সকল খেলাধুলার ইভেন্ট বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন জনসন। তাঁর এই সিদ্ধান্তকে দুই দিন আগে অর্থহীন হিসেবে ব্যাখা করেন ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক মাইকেল ভন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে জনসনের সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে ভন লিখেন, ‘হাত জীবাণুমুক্ত রাখার জন্য তরল সব কিছু থাকবে ক্রিকেটারের পকেটে। প্রতিবার বল করার আগে হাতটা জীবাণুমুক্ত করতে হবে, খুব সহজ ব্যাপার। বিনোদনমূলক ক্রিকেট ৪ জুলাই থেকে খেলা উচিত। এটা না ফেরানোটা নির্বোধের মতো কাজ।’

ক্রিকেটের প্রতি আবেগ, ভালোবাসা অনেক আগে থেকেই বেশি ব্রিটিশ এই প্রধানমন্ত্রীর। সেকারণেই সম্প্রতি নিজ দলীয় সংসদ সদস্যদের সঙ্গে এক বৈঠকে তিনি মন্তব্য করেন, ‘ক্রিকেট ছাড়া ইংল্যান্ডকে তার ইংল্যান্ডই মনে হয় না।’

নিউজক্রিকেট/শাওন

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »