আরও ঘনীভূত হল ‘ধাওয়ান’ ইস্যু

https://scontent.fdac34-1.fna.fbcdn.net/v/t1.0-1/p160x160/51944597_2359806007364192_9161774462004101120_n.jpg?_nc_cat=102&_nc_eui2=AeGmvEWwdZTI6h13hbQmMSFJ4-gYLzAZFkEblvpT-Pc958p5uxUSQH8qYi-qrRCgFRVGE9BuTO7WHDTGsa9R7a5PefWuRLnqcmM4IMSYYYm6wy_vlA5RAIOlKinAFEtS884&_nc_oc=AQnWbNap12YVmS5GLdVayRgzwdXPGWixt2FO-8dxtTwRAhhTMYJblKJ7y-seorDjcCo&_nc_ht=scontent.fdac34-1.fna&oh=ddf7e1e5c9e6fdf80ee8b0a6c135ef17&oe=5D7E25C1 »

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশ্বকাপে নিজেদের দিতি ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে মাঠে নামে ভারত। অজিদের বিপক্ষে জয়ও পায় কোহলির দল। টিম ইন্ডিয়ার জার্সি গায়ে এদিন সেঞ্চুরি হাঁকান বর্তমানে ভারতের অন্যতম সেরা ওপেনার শিখর ধাওয়ান। তবে বিপত্তি বেধেছে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচেই।

প্যাট কামিন্সের করা বল গিয়ে আঘাত হানে ধাওয়ানের বাঁ হাতের বৃদ্ধাঙ্গুলিতে। চোটের কারণে ওই ম্যাচে অজিদের বিপক্ষে ফিল্ডিং করতেও দেখা যায়নি তাকে। পরীক্ষানিরীক্ষা করার পর ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্টের পক্ষ থেকে জানানো হয় অন্তত তিন সপ্তাহের মত মাঠের বাইরে থাকতে হতে পারে ধাওয়ানকে। এই লম্বা সময় বাইরে থাকার ফলে বিকল্প ক্রিকেটার হিসেবে রিশাব পান্তকে পরের দিনই পাঠানো হয় ইংল্যান্ডে।

পান্ত ইস্যুতেও দ্বন্দ্ব দেখা গিয়েছে কোচ রবিশাস্ত্রী, কোহলি এবং টিম ম্যানেজমেন্টের মধ্যে। শাস্ত্রী ও কোহলি ধাওয়ানের জন্য অপেক্ষা করতে চাইলেও তাড়াহুড়া করেই নাকি পান্তকে ইংল্যান্ডে পাঠিয়েছে টিম ম্যানেজমেন্ট।

এবার তাই ধাওয়ান ইস্যুতে সরাসরি মুখ খুললেন দলটির অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তিনি জানান, ‘তার (ধাওয়ানের) হাতে প্লাস্টার করা হয়েছে। অন্তত দুই সপ্তাহ এভাবেই থাকতে হবে। এর পর আসলে বুঝা যাবে তাকে নিয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ কি হবে। আমরা আশা করছি তিনি খুব দ্রুতই সুস্থ হয়ে উঠবে। গ্রুপ পর্ব চলাকালীনই তিনি ফিরবেন ও সেমি ফাইনালেও খেলবেন বলে আশা করছি।’

এদিকে ধাওয়ানের জন্য যদি অপেক্ষা করতে হয় তাহলে আর মাঠে নামতে পারবেন না রিশাব পান্ত। কেননা আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী কোনো ক্রিকেটার চোটে পড়লে যদি নতুন ক্রিকেটার দলে যোগ দেন তাহলে ওই চোটে পড়া ক্রিকেটার সুস্থ হয়ে গেলেও আর পুনরায় ফেরা সম্ভব না। তাই ধাওয়ান এবং পান্ত ইস্যু আরও ঘনীভূতই হল।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »