আমরার পুয়ায় বিশ্বজয় করছে

মমিনুল ইসলাম »

সিলেটের বালাগঞ্জের তিলকচানপুরে বাড়ি যুব বিশ্বকাপজয়ী বাংলাদেশ যুবাদলের পেস বোলিং অলরাউন্ডার তানজিম হাসান সাকিব। সিলেটের ওসমানীগরের তাজপুর থেকে সাকিবের বাড়ি বালাগঞ্জের তিলকচানপুরের দুরত্ব প্রায় ১৪ কিলোমিটার । তাজপুর থেকে বালাগঞ্জ অবদি রাস্তার দুইধারে অবস্থান নিয়েছে এই এলাকার মানুষজন। বিশ্বকাপ জয় ঘরে সিলেটের ঘরের ছেলে ঘরে ফিরছে তাকে স্বাগত জানাতেই মানুষের এমন উপচে পড়া ভিড়।

রাস্তার দুই ধারে যে মানুষ গুলো দাঁরিয়ে আছে তাদের অনেকেই নাম জানে না কে আসছে। একে অন্যের কাছে থেকে শুনে নিচ্ছিলেন সাকিবের নাম। সাকিবের ফেস চিনেন না সেখানে উপস্থিত বেশিরভাগ লোকই। তারা শুধু এটা জানে টাইগার যুবারা যে বিশ্বকাপ জিতছে তাদের দলের একজন হলেন তাদের এলাকার। তাতেই মানুষের এমন উপচে পড়া ভীড়।

সবার মত করে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন আকছর আলি নামের এক বৃদ্ধ। তাঁর কাছে এখানে দাঁড়িয়ে থাকার কারন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ আমরার পুয়ায় ( ছেলে) বিশ্বজয় করছে। সে আইজ ( আজ) আইব ( আসবে) । তারেই দেখতে আইছি ( আসছি) ।

আমরার পুয়াটাই হলো তানজিম হাসান সাকিব। যিনি কি না বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য। চারিদিক সাকিব সাকিব আর বাংলাদেশ স্লোগানে মুখরিত। যেদিকে তাকানো যায় সেদিকেই মানুষের ভীড়। বাড়িতে এত অতিথিকে সামাল দিচ্ছিলেন সাকিবের বাড়ির মানুষ আবারও সেলফির আবদার মিটাতেও হচ্ছিলো সাকিব। এত মানুষের ভীড় সামলে বিকেলের দিকে বাড়িতে এসে পৌঁছায় সাকিব।

অবশেষে একটু একটু করে সবার মুখে শোনা গেলো সাকিবের ক্রিকেটার হয়ে উঠার গল্প।

সাকিবের সহপাঠী আলালউদ্দিন জানান, ‘ সাকিব সারাদিন ক্রিকেট খেলা নিয়ে পড়ে থাকতো। বাড়িতে বকা দিলেও পালিয়ে গিয়ে ক্রিকেট খেলতো।

সাকিবের বাবা গউছ মিয়া বলেন, ‘ ছোট থেকেই বেশ দুরন্ত ছিলো সাকিব। সবসময়ই খেলাধুলা নিয়ে পড়ে থাকতো। এটার জন্য অনেক সময় বকাও দিয়েছি। যখন দেখি তার আগ্রহ অনেক খেলাধুলার প্রতি তখন বিকেএসপিতে ভর্তি করাই। সাকিবরা আজ পুরো দেশের মুখ উজ্জ্বল করেছে। ‘

এলাকার মানুষের এমন ভালোবাসা পেয়ে আপ্লুত সাকিব। তিনি বলেন, ‘ এলাকার মানুষের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। এলাকার মানুষ ও দেশের মানুষকে আনন্দে ভাসাতে পেরেছি। আমাদের স্বার্থকতা এখানেই। ‘

তিনি আরও যোগ করেন, ‘ ফাইনালে উঠার পর আমরা সবাই দৃঢ়প্রত্যয়ী ছিলাম। ম্যাচের আগেরদিনও আমরা জয় ছাড়া কিছু ভাবিনি। ‘

এই সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন সিলেট -৩ আসনের সংসদ সদস্য মাহমুদ-উস-সামাদ চৌধুরী কায়েস। তিনি বলেন, ‘ বিশ্বকাপ দলের সবাইকে সিলেটে এনে সংবর্ধনা দেয়া হবে। ‘

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »