আমরাও মানুষ আমরাও ভুল করি, কিন্তু ছোট করা ঠিক নাঃ মাহমুদউল্লাহ

নিউজ ক্রিকেট ২৪ ডেস্ক »

 

ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ড সাথে সিরিজ জয় করে, এবারে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এসেছিল বাংলাদেশ। তবে আইসিসি ইভেন্টের প্রস্তুতি ম্যাচ একদমই ভালো হয়নি নানান ভাবে সমালোচনা তৈরি হচ্ছিল বাংলাদেশ দলের।

বরাবরই সিরিজ জয় আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে থাকার কথা। কিন্তু স্কটল্যান্ড এর সাথে প্রথম ম্যাচ হেরেই যেন টুনামেন্ট থেকে বিদায় নেওয়ার একটা সম্ভাবনা ছিলো।

যদিও সেটা মাঠের ক্রিকেটে একেবারেই দেখা যায়নি। স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে বোলাররা দারুণ শুরু করলেও শেষ পর্যন্ত ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার হারতে হয়েছিল টাইগারদের। স্কটিশদের বিপক্ষে হারের পর বাংলাদেশের সুপার টুয়েলভের খেলা নিয়েই শঙ্কা তৈরি হয়েছিল। যে কারণে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম, গণমাধ্যম বা বোর্ডের সমালোচনা শুনতে হয়েছিল মাহমুদউল্লাহবাহিনীকে।

যা নিয়ে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা খানিকটা অসন্তুষ্ট ছিল। ওমানকে হারানোর দিনে সংবাদ সম্মেলনে সাকিব আল হাসান খানিকটা অন্য মেজাজে ছিলেন। পাপুয়া নিউ গিনিকে হারিয়ে বাংলাদেশ যখন সুপার টুয়েলভ নিশ্চিত করলো সেদিনও প্রেস কনফারেন্সে আসা মাহমুদউল্লাহও কথা বলছিলেন একটু কড়া সুরে। এটি নিয়ে প্রশ্ন ছুঁড়ে দিলে মাহমুদউল্লাহ জানান, তারাও মানুষ তাদেরও ভুল হয়। কিন্তু কাউকে ছোট করে দেখা ঠিক না।

মাহমুদউল্লাহ বলেন, ‘স্পর্শ সবই করে। আমরাও মানুষ, আমাদের অনুভূতি কাজ করে। আমাদের পরিবার আছে, সবারই পরিবার আছে। আমাদের বাবা-মায়েরা বসে থাকে টিভি সেটের সামনে, সন্তানরা বসে থাকে। তারা মন খারাপ করে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম তো এখন হাতের নাগালে, সবারই মোবাইল আছে। সমালোচনা তো হবেই। আমরাও আশা করি সমালোচনা, খারাপ খেলে সমালোচনা তো হবেই। কেন হবে না? কিন্তু সমালোচনার মাধ্যমে যখন কেউ কাউকে ছোট করে ফেলে তখন ওগুলো খুব খারাপ লাগে।’

অনেক প্রশ্ন এসেছে আমাদের স্ট্রাইকরেট, আমাদের তিনজন সিনিয়র ক্রিকেটারের স্ট্রাইক রেট নিয়ে। আমরা তো চেষ্টা করেছি। চেষ্টার বাইরে তো আমাদের কাছে কিছু নেই। এমন না যে আমরা চেষ্টা করিনি। আপ্রাণ চেষ্টা করেছি। হয়তোবা রেজাল্ট আমাদের পক্ষে আনতে পারেনি। সমালোচনা পাওয়া অবশ্যই আমাদের কাম্য, সমালোচনা হবেই। কিন্তু আরেকটু যদি স্বাস্থ্যকর হয়, আমার মনে হয় সবার জন্যই ভালো।’

বাংলাদেশের জার্সিটা যখন গায়ে জড়াই আমাদেরও অনুভূতি হয়। দেশের জন্য সবই থাকে। ব্যথা থাকে, কারো অনেক ধরনের ইনজুরি থাকে। আমরা ওগুলো নিয়েই খেলি৷ দিনেরপর দিন ব্যথানাশক ওষুধ খেয়েও খেলি। ভেতরের খবর অনেকেই জানেনা। তো আমার মনে এগুলো নিয়ে কমেন্ট করা ঠিক না। আশা রাখি আমরা কিছুটা স্যাটিস্ফাইড। সব থেকে বড় কথা হচ্ছে টিমের মধ্যে যে উদগ্রীবতা ছিল, ওটা খুবই ইতিবাচক ছিল। এজন্য দলের প্রতিটা সদস্যেরই ক্রেডিট দেওয়া উচিৎ।’

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »