অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটের অভিজ্ঞতা দিয়ে দেশের ক্রিকেটকে উজাড় করে দিতে চাই: জান্নাতুল সুমনা

নিউজ ক্রিকেট ২৪ ডেস্ক »

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আট দশজন মেয়ের মত শৈশব কাটেনি সুমনার ৷ প্রথাগত রীতি-নীতির বাইরে গিয়ে ছোটবেলা থেকে ব্যাট বলের সাথে সখ্যতা গড়ে তুলেন৷ সরকারী চাকুরিজীবী বাবা ও মায়ের সমর্থনেই এগিয়ে গিয়েছেন জান্নাতুল সুমনা৷ নীলফামারীতে জন্ম হলেও বেড়ে উঠেছেন রংপুরেই৷
সুমনা দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করার পাশাপাশি অস্ট্রেলিয়ার স্বনামধন্য ক্লাব “সিডনি ক্রিকেট ক্লাবের” হয়ে খেলছেন৷  অস্ট্রেলিয়ার নামী দামি তারকা প্লেয়ার ও কোচের দীক্ষা পেয়েছেন বাংলার এই বাঘিনী৷ নিজেকে ভালো স্পিন অলরাউন্ডার হিসেবে প্রতিনিয়ত তৈরি করে যাচ্ছেন৷ ২০১৯ সালে অস্ট্রেলিয়ায় পাড়ি জমিয়ে ওখানকার সিডনি ক্রিকেট  ক্লাবের হয়ে নিয়মিত খেলেছেন তিনি৷

নিজের ক্রিকেট ক্যারিয়ার, ব্যক্তিগত জীবন , বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটের ভিন্নতার দিকগুলোসহ বিভিন্ন বিষয়  নিয়ে খোলামেলা কথা বলেছেন আমাদের “নিউজক্রিকেট২৪ডট কম” এর প্রতিবেদক জাকির মামুনের সাথে৷

পাঠকদের উদ্দেশ্যে সাক্ষাৎকারটির মূল অংশটুকু হুবহু তুলে ধরা হলো-

নিউজক্রিকেটঃ  কেমন আছেন? কিভাবে সময় পার করছেন?

সুমনাঃ  ভালো আছি৷ নিয়মিত প্র্যাকটিস আর ফিটনেস নিয়ে কাজ করে সময় পার করছি৷

নিউজক্রিকেটঃ  দেশ ছেড়ে অস্ট্রেলিয়ায় পাড়ি জমানোর গল্পটা যদি ছোট্ট করে বলতেন…

সুমনাঃ ২০১৮ সালে আমি যখন জাতীয় দল থেকে বাদ পড়ি, তখন আমাদের ঘরোয়া ক্রিকেটেও কোন ধরনের খেলা চলছিলোনা৷ এমন সময়ে সিডনি ক্রিকেট ক্লাব থেকে খেলার আমি আমন্ত্রণ পাই৷ পরে বিষয়টি ইতিবাচকভাবে নিলাম৷ যেহেতু  দেশে খেলার তেমন কোনো সুযোগ ছিলো না, সেহেতু পরিবারের সাথে পরামর্শ করে আমি হ্যাঁ বলে দিলাম৷ এরপর২০১৯সালে আমি চলে এলাম অস্ট্রেলিয়ায়৷

নিউজক্রিকেটঃ বাংলাদেশ থেকে এসে এখানে কি ধরনের প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হয়েছেন?

সুমনাঃ আবহাওয়া নিয়ে প্রথমদিকে একটু সমস্যা হয়েছিলো৷ তখন বাংলাদেশে ছিলো গ্রীষ্মকাল আর এখানে ছিলো শীতকাল৷ আস্তে আস্তে মানিয়ে নিয়েছি৷ প্রথমদিকে টিমমেটদের সাথে কিভাবে মিশবো তা নিয়ে একটু চিন্তা ছিলো৷ কিন্তু ওরা এতটাই বন্ধুভাবাপন্ন ছিলো যে আমার জড়তা সহসা কেটে গেলো৷ ওরা  আমাকে খুব আপন করে নিয়েছে৷

নিউজক্রিকেটঃ বাংলাদেশ, অস্ট্রেলিয়া দুইদেশেই খেলার অভিজ্ঞতা আছে৷ দেশের উইকেটের চেয়ে এখানকার উইকেটে কি ধরনের ভিন্নতা রয়েছে?

সুমনাঃ ভিন্নতা কিছুটা তো রয়েছে৷ আমার মতে, আমাদের দেশের উইকেট স্লো, স্পিন সহায়ক। আর এখানকার উইকেট বাউন্সি ও ব্যাটিং সহায়ক৷

নিউজক্রিকেটঃ দেশের চেয়ে কোন ধরনের সুযোগ সুবিধা এখানে বেশি পাচ্ছেন?

সুমনাঃ এখানে স্পেসিফিক( নির্দিষ্ট ) কোচের অধীনে আমার কোচিং করার সৌভাগ্য হয়েছে, দেশে হয়তো এটা ওভাবে সম্ভব হতোনা৷ অস্ট্রেলিয়া জাতীয় নারী ক্রিকেট দলের অনেকের সাথে অনুশীলন করার সুযোগ হয়েছে, অভিজ্ঞতা অর্জিত হয়েছে৷ এলিসা হিলি( অস্ট্রেলিয়ার উইকেটকিপার ), রাসেল হাইনেস( সহ-অধিনায়ক )-দের সাথে ক্রিকেট  নিয়ে অনেক কথা হয়েছে।কোচ স্টুয়ার্ট ম্যাকগিল( অস্ট্রেলিয়ার সাবেক লেগ স্পিনার ), কোচ রস টার্নাসের সাথে কাজ করার সুযোগ হয়েছে৷ এই অভিজ্ঞতাগুলো আমার ক্রিকেট ক্যারিয়ারের জন্য সবচেয়ে ভালো দিক ছিলো৷

নিউজক্রিকেটঃ সিডনি ক্রিকেট ক্লাবের হয়ে  ভালো পারফর্ম করছেন৷ দেশের ক্রিকেটের ক্ষেত্রে তা কতটুকু কাজে দিবে বলে মনে করেন?

সুমনাঃ এখানে যা শিখেছি তা আমার  জন্য ভালো ফল বয়ে আনবে আশা করি৷ এখানে খেলে আমার আত্মবিশ্বাসটা অনেক বেড়েছে, যেটা একজন ক্রিকেটারের জন্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয়৷ ভিন্ন কন্ডিশনে কিভাবে মানিয়ে নিয়ে পারফর্ম করতে হয় সেটা আমি এখন অনেকটা জানি৷

নিউজক্রিকেটঃ ক্রিকেটার হওয়ার পিছনে কার অবদান বেশি?

সুমনাঃ আব্বু-আম্মু দুইজনেরই৷ উনারা আমাকে সবদিক থেকে সমর্থন দিয়েছেন৷ আর উনাদের অকুণ্ঠ সমর্থনের কারনেই আমি এতটুকু পর্যন্ত আসতে পেরেছি৷

নিউজক্রিকেটঃ খেলার পাশাপাশি কি করতে ভালোবাসেন?

সুমনাঃ পড়াশুনা৷ ক্রিকেটারের পাশাপাশি আমি একজন ছাত্রীও বটে৷ তাই আমি পড়াশুনাও ভালো করতে চাই৷ আর পড়াশুনাটাকে ও ভালোবাসি৷

নিউজক্রিকেটঃ ক্রিকেটে কাকে আদর্শ মানেন?

সুমনাঃ সাকিব আল হাসান কে৷

নিউজক্রিকেটঃ ফুটবলে কার খেলা ভালো লাগে?

সুমনাঃ ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো৷

নিউজক্রিকেটঃ বিসিবি থেকে কিছুদিন আগে ইতিবাচক সাড়া পেয়েছেন৷ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে দেশে আসবেন৷ জাতীয় দলে আবার সুযোগ পেলে কি করার ইচ্ছা আছে?

সুমনাঃ জাতীয় দলে খেলাটা সম্মানের। যেহেতু আমি অলরাউন্ডার, আমার লক্ষ্য থাকবে ব্যাটে-বলে সমানভাবে পারফর্ম করা৷ আমি যদি সুযোগ পাই তাহলে অস্ট্রেলিয়া থেকে প্রাপ্ত অভিজ্ঞতা দিয়ে দেশের ক্রিকেটকে আমার সেরাটা উজাড় করে দেওয়ার চেষ্টা করবো৷

নিউজক্রিকেটঃ আপনাকে অনেক ধন্যবাদ৷ আপনার জন্য রইলো অনেক অনেক শুভকামনা৷

সুমনাঃ আপনাকে ও নিউজক্রিকেট২৪ডট কম এর সকল পাঠককে ধন্যবাদ জানাই এবং দেশবাসীকে পবিত্র ইদুল আযহার শুভেচ্ছা জানাই৷

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »