fbpx

অজিদের হারাতে হলে চাই পরিকল্পনার সঠিক বাস্তবায়ন

নিউজ ক্রিকেট ২৪ ডেস্ক »

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলাদেশের বিপক্ষে এমন এক দলের খেলা যাদের স্নায়ুর ওপর চাপ নেয়ার ক্ষমতা মারাত্মক। নিজেদের পরিকল্পনা শতভাগ বাস্তবায়নে অস্ট্রেলিয়া অন্য সবার চেয়ে এগিয়ে। কিন্তু এমন দলকেও স্নায়ুর চাপ বা বোকা বনতে দেখা গেছে গত দেড় দশকে। একজনই পার্থক্য গড়ে দিয়েছেন। তিনি ভারতের শচীন টেন্ডুলকার।

প্রতিপক্ষের চেনা পরিকল্পনাগুলোকে ওলট-পালট করতে গিয়ে পাল্টা আক্রমণের যে ধারা তিনি তাঁর ব্যাটে তৈরী করেছিলেন, তা গত যুগ ধরে অন্যরা অনুসরণ করেছে। অস্ট্রেলিয়া এমন এক প্রতিপক্ষ তারা প্রথম থেকেই ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিতে চায়। ছক কষে প্রত্যেক ব্যাটসম্যানকে বল করা, ক্যাচ নেয়া, রান আউট করা। সেখানে তাদের পরিকল্পনা বদলে দিতে বাধ্য করার যা মানসিক জয়, সেটাই পুরো ম্যাচে জয় হিসেবে দিন শেষে দাঁড়িয়ে যায়। যে কারনে ব্যাটসম্যানটির নাম শচীন টেন্ডুলকার। যাঁর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আছে দারুণ পরিসংখ্যান।

এখনকার ক্রিকেট আগের চেয়ে গাণিতিক। সে সূত্রে বলাই যায় স্টিভ ওয়াহ, পন্টিংয়ের স্নায়ুর চাপ নেয়ার ক্রিকেটও এই অস্ট্রেলিয়া পুরোপুরি খেলছে না। ওয়েস্ট ইন্ডিজ বোকার মত খেলাটা না খেললে, পাকিস্তান নিজেরাই উইকেট ছুঁড়ে না দিয়ে আসলে, ফিঞ্চের দলটাকে ভারতের বিপক্ষেই শুধু নয়। এখন দিতে হত অস্তিত্বের কঠিন পরীক্ষা। সেই পরীক্ষাটা কিন্তু এবারও কম নয়। বাংলাদেশের বিপক্ষে জয় পেলে তাদেরও সেমির সম্ভাবনা উজ্জ্বল হয়। হারলে তাদেরও পড়তে হয় পাঁকে। যার মানে দাঁড়াচ্ছে, আক্রমণাত্মক ক্রিকেট খেললে অস্ট্রেলিয়াকে ভড়কে দেয়া সম্ভব। তাদের যে পরিকল্পানা তার বাইরে দিয়ে ‘আউটস্মার্ট’ করার কিছু থাকলে, সেটা অজিরা কখনো জবাব দিতে পারেনা।

এ আসরে স্মিথরা যতটুকু এসেছে, সেটা তাদের ঐতিহ্যের ওপর ভর দিয়েই। ১২ মাস আগেও এই দলটাকে খাবি খেতে দেখা গেছে। সে হিসেবে তিনটা ভাল জয় পেয়ে বিশ্বকাপে অনেকটা সামনেই আছে ফিঞ্চ। কিন্তু তাদের থামানো সম্ভব। খুব সম্ভব। তাদের চেয়ে ভালো তো খেলতেই হবে। তাদের ভুল করতে বাধ্য করার মুন্সীয়ানা দেখাতে হবে কোচ স্টিভ রোডসের কোচিং ম্যানুয়েল থেকে। কাঁটা দিয়ে কাঁটা তোলার মত অবস্থা অনেকটা। অজিদের মূল শক্তি স্টার্ক-কামিন্সদের গতি। বাংলাদেশের স্পিন। অজিদের আছেন প্রথম তিন ব্যাটসম্যান যারা দাঁড়িয়ে গেলে সমস্যা। বাংলাদেশের প্রথম চার ব্যাটসম্যান দাঁড়িয়ে গেলে, সেটা অস্ট্রেলিয়ার জন্য সমস্যা। অন্তত: তিনজনও যদি দাঁড়িয়ে যায় অনেকটা খেল খতম অবস্থা। এখনকার ক্রিকেটে কেউ অজেয় নয়। একটু ভাগ্যের পরশ ও পরিকল্পনার বাস্তবায়ন হলে এই অস্ট্রেলিয়াও স্নায়ুর চাপ নিতে অক্ষম সেটা এ আসরে দেখা গেছে। ১৪ বছর পর দ্বিতীয় জয় পাওয়াটা কঠিন হলেও,অসম্ভব নয়। মাশরাফীদের পক্ষে সেটা করা সম্ভব।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »