আফগানিস্তানের বিপক্ষে এনামুল জুনিয়রের বাংলাদেশ একাদশ

দুর্জয় দাশ গুপ্ত »

বাংলাদেশের বিশ্বকাপ মিশন শুরু হচ্ছে ৭ অক্টোবর। প্রথম ম্যাচে টাইগারদের প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান। আফগানিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশের সবশেষ দেখায় এশিয়া কাপে টাইগারদের দাপুটে জয় থাকলেও এবছরই ঘরের মাঠে আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ হেরেছে টিম টাইগার্স।

পুরো বিশ্বকাপ জুড়েই বাংলাদেশের প্রতিটা ম্যাচ প্রিভিউতে থাকছেন বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট জয়ের নায়ক, সাবেক ক্রিকেটার এনামুল হক জুনিয়র।

মুঠোফোনে নিউজ ক্রিকেট ২৪ কমের সাথে যুক্ত হয়ে এনামুল হক জুনিয়র জানান আফগানিস্তানের বিপক্ষে কেমন হওয়া উচিত টাইগারদের একাদশ।

সাবেক এই ক্রিকেটারের মতে তরুণ তুর্কী তানজিদ হাসান তামিমের উপরই ভরসা রাখা উচিত টিম ম্যানেজমেন্টের। গেল এশিয়া কাপে আফগানিস্তানের বিপক্ষে মেইক শিফট ওপেনার নিয়ে সফল হয়েছিলো বাংলাদেশ। মেহেদী হাসান মিরাজ ওপেন করতে নেমে করেছিলেন অনবদ্য এক সেঞ্চুরি। তবুও আফগান জুজু কাটাতে নিয়মিত ওপেনারদের উপরই ভরসা রাখা উচিত বলে মনে করেন তিনি।

এনামুল জুনিয়র বলেন, “দুটো প্রস্তুতি ম্যাচেই তানজিদ তামিমের ব্যাটিং দেখলাম। আমি মনে করি তার উপরই ভরসা রাখা উচিত। তামিমের সাথে ওপেনিংয়ে আমি লিটন দাসকেই রাখবো। লিটন-তামিমের উপর নির্ভর করেই একাদশ সাজানো উচিত।”

এছাড়া এনামুলের মতে তিন নম্বর পজিশনে নাজমুল হোসেন শান্ত’র পর চার নম্বর পজিশনে তাওহিদ হৃদয়কে রাখছেন তিনি। এরপর যথাক্রমে অধিনায়ক সাকিব পাঁচ নম্বর, মুশফিকুর রহিম ছয় নম্বর এবং অভিজ্ঞ মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে সাত নম্বর পজিশনে রাখছেন তিনি। এনামুল হক জুনিয়রের একাদশে জায়গা হয়নি অলরাউন্ডার শেখ মাহেদীর। সেক্ষেত্রে মেহেদী হাসান মিরাজকে দশ ওভার বল করার কথা বলছেন।

এদিকে বোলিং ইউনিটে এনামুল হক জুনিয়রের প্রথম পছন্দ তাসকিন আহমেদ ও মুস্তাফিজুর রহমান। এ ব্যাপারে তিনি বলেন, “বোলিংয়ে আমি অভিজ্ঞতাকেই প্রাধান্য দেব। আমি মনে করি তাসকিন ও মুস্তাফিজকে কেন্দ্র করেই বোলিং ইউনিটটা সাজানো উচিত। এছাড়া আরেকটা পেস বোলিং অপশন হিসেবে আমি তানজিম হাসান সাকিবকে রাখবো। কারণ শেষের দিকে সাকিব ভালো ব্যাট করতে পারে। ওয়ানডে ক্রিকেটে কিন্তু দলের প্রয়োজনে সবাইকেই ব্যাট করতে হয়। সে হিসেবে সাকিবের দ্রুত রান তোলার ক্ষমতা আছে। আমি সাকিবকেই আফগানিস্তানের বিপক্ষে একাদশে রাখবো।”

 

আফগানিস্তানের বিপক্ষে এনামুল হক জুনিয়রের বাংলাদেশ একাদশঃ তানজিদ হাসান তামিম, লিটন দাস, নাজমুল হোসেন শান্ত, তাওহিদ হৃদয়, সাকিব আল হাসান (অধি), মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাসকিন আহমেদ, তানজিম সাকিব ও মুস্তাফিজুর রহমান।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »